বিশ্ব ভারোত্তলন প্রতিযোগিতায় নতুন নজির গড়লেন মীরাবাই চানু। প্রথম ভারতীয় মহিলা ভারোত্তলক হিসেবে ২০১ কেজি ওজন তুললেন মণিপুরের মীরা। এর আগে কোনও ভারতীয় মহিলা ভারোত্তলক ২০০ কেজি বা তার বেশি ওজন তুলতে পারেনি। এরআগে ১৯৯ কেজি ওজন তুলেছিলেন মীরাই। এবার বিশ্ব ভারোত্তলন প্রতিযোগাতিয় নিজের সেই রেকর্ডকেই ছাপিয়ে গেলেন চানু। মীরার এই ফলাফল ২০২০ টোকিও অলিম্পিকে পদকের  স্বপ্ন দেখাচ্ছে।নিজের ওজনের চার গুন ওজন তুলে নজির গড়লেন মীরা। কিন্তু নিজেকে ছাপিয়ে গেলেও বিশ্ব মিটে পদক জেতা হল না। চতুর্থ স্থানে শেষ করলেন ভারতীয় ওয়েট লিফটার। 

আরও পড়ুন - অলিম্পিকের টিকিট নিশ্চিত করলেন বজরং, চমক দিলেন ভারতীয় কুস্তিগির রবি

বৃহস্পতিবার স্ন্যাচ ইভেন্টে ৮৭ কেজি ওজন তোলেন মীরাবাই চানু। এটাও তাঁর ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ। এরপর ক্লিন অ্যান্ড জার্ক বিভাগে ১১৪ কেজি ওজন তুলে ২০০ কেজির গন্ডি পার করেন মণিপুরের মেয়ে। ২৫ বছরের ভারতীয় ভারোত্তলক ২০১ কেজি ওজন তুললেও ৪৯ কেজি ক্যাটাগরিতে চতুর্থ স্থানে শেষ করতে হল তাঁকে। চীনের জিয়াং ২১২ কেজি ওজন তুলে নতুন বিশ্বরেকর্ড গড়ার পাশাপাশি সোনার পদকও জিতে নেন। অন্যদিকে ২১১ কেজি ওজন তুলে দ্বিতীয় হয়েছেন চীনের ঝিহুই। চতৃতীয় স্থানে শেষ করেছেন উত্তর কোরিয়ার সং গাম। ২০৪ কেজি ওজন তুলেছেন এই ভারোত্তলক। 

 

আরও পড়ুন - বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে ছিটকে গেলেন হিমা দাস

রেকর্ড গড়েও বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে পজক পেলেন না মীরাবাই চানু। কিন্তু ২০২০ টোকিও অলিম্পিকে ভারোত্তলনে ভআরতের পদক জয়ের সম্ভাবনা তৈরি হল। প্রথমত এই পারফরম্যান্স চানুকে আরও ভাল করতে মানসিক ভাবে তৈরি করবে, পাশাপাশি অলিম্পিকে চীন থেকে ৪৯ কেজি বিভাগে অংশ নিতে পারেবন একজন ভারোত্তলকই। তাই বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের পোডিয়ামে চীনের দুজন থাকলেও অলিম্পিকে একজনই থাকতে পারবেন। ২০১৮ সালে পিঠের চোট মীরাবাইকে খেলা থেকেই অনেকটা দুরে সরিয়ে দিয়েছিল। কিন্তু চোট কাটিয়ে আবার ফিরে এসেছেন তিনি। আগামী মাসে আরও দুটি প্রতিযোগিতায় নামতে চলেছেন মীরাবাই। সেই দুটি টুর্নামেন্টও অলিম্পিক যোগ্যতা নির্নায়ক পর্বের মধ্যেই পরছে। 

আরও পড়ুন - টোকিও অলিম্পিকের টিকিট পাকা ভিনেশ ফোগাটের, বিশ্ব কুস্তি প্রতিযোগিতায় জিতলেন ব্রোঞ্জ পদকও