মহামারীর বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়ার খেসারত দিয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বিশ্বের এক নম্বপ টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচ। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন জোকার। করোনা ভাইরাসকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে প্রদর্শনী টেনিস প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিলেন জোকোভিচ। সেই প্রতিযোগিতাতে অংশ নিয়ে প্রথম করোনা আক্রান্ত হন বুলগেরিয়ান টেনিস তারকা গ্রিগর দিমিত্রভ। এরপর করোনা আক্রান্ত হয়েছেন জোকোভিচ আরও দুই টেনিস তারকা। এবার সেই তালিকায় নাম লেখালেন বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকার কোচ গোরান ইভানিসেভিচ। যিনি ওই প্রীতি টেনিস প্রতিযোগিতার ডিরেক্টর হিসেবেও কাজ করেছিলেন।

আরও পড়ুনঃএবার ক্রিকেট কোচ হতে চলেছেন ধোনি,তাহলে কি সত্যিই অবসর আসন্ন

জানা গিয়েছে ইভানিসেভিচের শরীরে করোনা সংক্রমণের কোনও লক্ষ্মণ ছিল না। কিন্তু জোকার আক্রান্ত হওয়ার পরই একাধিক বার পরীক্ষা করান প্রাক্তন ক্রোয়েশিয়ান টেনিস তারকা। তৃতীয় বারের বেলায় রিপোর্ট করোনা পজেটিভ ধরা পড়ে ইভানিসেভিচের। সোশ্যাল মিডিয়ায় জোকোভিচের কোচ জানিয়েছেন,'গত ১০ দিনে দু’বার পরীক্ষা করিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তখন তাঁর শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি মেলেনি। কিন্তু ফের পরীক্ষা করানোর পরে শুক্রবার জানা যায়, তিনি করোনা সংক্রমিত। গত কয়েক দিনে যাঁরা আমার সংস্পর্শে এসেছিলেন, তাঁদের সবাইকেই জানাচ্ছি যে, আমি করোনা আক্রান্ত। সবাই তাঁর পরিবার ও প্রিয়জনের সঙ্গে সুরক্ষা বজায় রেখে চলুন।' বর্তমানে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ইভানিসেভিচ।

 

 

আরও পড়ুনঃপরিবারে একের পর এক করোনার থাবা,রাতের ঘুম কেড়েছে সৌরভের

আরও পড়ুনঃপজেটিভ,নেগেটিভ,পজেটিভ,রহস্যের অপর নাম মহম্মদ হাফিজের করোনা টেস্ট রিপোর্ট

করোনা আবহে সার্বিয়ার বেলগ্রেড এবং ক্রোয়েশিয়ার জাদারে সম্প্রতি জকোভিচের চ্যারিটি টুর্নামেন্ট নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। এক এক করে টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করা প্লেয়াররা করোনা আক্রান্ত হওয়ায় ব্যাপক সমালোচনার পড়তে হয়েছে জোকারকে। আদ্রিয়া ট্যুর আয়োজনের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন খোদ অনুরাগীরা। টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করা প্লেয়াররা সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং উপেক্ষা করে পার্টিতে অংশগ্রহণ করায় তাঁদের প্রতি ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন অজি টেনিস তারকা নিক কিরগিওস। যদিও সেই সময় প্রিয় ছাত্রের পাশেই দাঁড়িয়েছিলেন ইভানিসেভিচ। এবার নিজেও আক্রান্ত হলেন মারণ ভাইরাসে। একের পর এক টেনিস তারকা মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসার পর উদ্বেগ বাড়ছে টেনিস বিশ্বে।