ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসকে মহামারি ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। ক্রীড়া ক্ষেত্রেও ব্যাপক প্রভাব পড়েছে করোনা ভাইরাসের। সচেতনতা বৃদ্ধি ও সরকারি নিয়মমাফিক চলা ও সুস্থ থাকাই করোনা সংক্রমণ রোধের একমাত্র পথ। সাধারণের সচেতনতা বৃদ্ধিতে  সোশাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করে বার্তা দিচ্ছেন প্রাক্তন ও বর্তমান প্লেয়াররা। তালিকায় রয়েছেন সচিন তেন্ডুলকর,বিরাট কোহলি থেকে রোহিত শর্মা অনেকেই। সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য সম্প্রতি হ্যাশ ট্যাগ সেফ হ্যান্ডস চ্যালেঞ্জ বলে একটি অভিনব সিদ্ধান্তও নিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। আর এই চ্যালেঞ্জে বিভিন্ন ক্ষেত্রের সেলেবদের সামিল করার চেষ্টা চালাচ্ছে হু। বাদ যাচ্ছেন না ক্রীড়া ব্যক্তিত্বরা।  নেটদুনিয়ায় একে-অপরের দিকে সেফ হ্যান্ড চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন তাঁরা। কী এই সেফ হ্যান্ড চ্যালেঞ্জ। হু-এর নিয়ম মেনে ১১ ধাপে সঠিক পদ্ধতিতে হাত ধুয়ে কিংবা অ্যালকোহল-যুক্ত স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করে সেই ভিডিও পোস্ট করতে হবে সোশ্যাল মিডিয়ায়। একজন চ্যালেঞ্জ শেষ করে অন্যকে চ্যালেঞ্জ জানাবেন। জনসাধারণ যাতে প্রিয় তারকাদের দেখে উদ্বুদ্ধ হন, সেটাই এর মূল উদ্দেশ্য।

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাস রুখতে ভিডিও বার্তা সচিনের, কী বললেন মাস্টার ব্লাস্টার

আরও পড়ুনঃইতালির একই ক্লাবের ৭ জন প্লেয়ার করোনায় আক্রান্ত, আরও ভয়াবহ হচ্ছে পরিস্থিতি

ইতিমধ্যেই এই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছেন মাস্টার ব্লাস্টার সচিন তেন্ডুলকর। সোশাল মিডিয়ায় পোস্টও করেছেন সচিন। একইসঙ্গে লিখেছেন, 'আমরা সবাই করোনা ভাইরাস নিয়ে খবুই চিন্তিত। তবে একটা সহজ বিষয় আমরা আমাদের হাত বারবার ধুয়ে এই ভাইরাসের সমক্রণ রোধ করতে পারি। আর প্রতিবার ২০ সেকেন্ড করে হাত ধুতে হবে। আমি নিজের হাত খুব ভাল করে ধুয়েছি'।

 

 

শুধু সচিন তেন্ডুলকর নয়, অলিম্পিক রূপো জয়ী পিভি সিন্ধুও এই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেছেন ও নিজের হাত ধোয়ার ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় ভিডিওটি পোস্ট করেছেন। সচেতনতার বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি বিরাট কোহলি ও সানিয়া মীর্জাকে চ্যালেঞ্জও করেছেন বিশ্বজয়ী শাটলার।

 

 

স্প্রিনটার হিমা দাসও গ্রহণ করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এই চ্যালেঞ্জ। হাত ধোয়ার ভিডিও শেয়ার করার পাশাপাশি সকলকে একসঙ্গে করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার বার্তাও দিয়েছেন হিমা।

 

 

এই চ্যালেঞ্জ থেকে বাদ যাননি কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রী কিরেণ রিজিজুও। অনেকের দেওয়া চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে নিজের সাাবান দিয়ে হাত ধোয়ার ভিডিও শেয়ার করেছেন তিনি। একইসঙ্গে আমরা এই ভাইরাসকে রোধ করতে পারব বলেও জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রী।

 

 

১৩ মার্চ থেকে শুরু হওয়া এই সেফ হ্যান্ডস চ্যালেঞ্জের ভিডিও ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে। আরও সেলেবরা এগিয়ে আসলে করোনা ভাইরাস রোধে মানুষের সচেতনতা আরও বাড়বে বলেই মনে করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আধিকারিকরা। 

ভ্যালেন্সিয়া ফুটবল দলের ৩৫ শতাংশ প্লেয়ার ও সাপোর্টিং স্টাফ করোনা আক্রান্ত