সপ্তাহের শেষে ছুটির আমেজ মানেই দিঘা কিংবা মন্দারমনি। এমনটাই এখন ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলায়। ধীরে ধীরে করোনার কোপে যখন গ্রাস হয়েছিল পর্যটন, ঠিক সেই সময়ই ব্যাপক ক্ষতির মুখ দেখতে হয়েছিল দিঘা পর্যটনকে। এমনই পরিস্থিতিতে বছর ঘুরতেই পর্যটকদের ঢল নামে সমুদ্র সৈকতে। তবে কয়েকমাস যেতে না যেতেই আবারও বিপাকে পর্যটন। ভোটের জেরে বন্ধ থাকছে দিঘা। 

আরও পড়ুন- EVM-এ বিজেপির রঙ, কেন্দ্রীয় বাহিনীর ডান্ডা - অভিযোগের বন্যা বইয়ে দিচ্ছে তৃণমূল

প্রথম দুই দফাতেই ভোট দিঘার কাঁথি ও নন্দীগ্রামে। যার জেরে মার্চ মাসের শেষ সপ্তাহ পর্যটক বিহিন হয়েই কাটাতে হচ্ছে দিঘাকে। মেদিনীপুরের ভোট হওয়ার কারণে, বিভিন্ন হোটেল ও লজ বন্ধ রাখা হল, কর্মীরাও নিজ নিজ জায়গায় ভোট দেওয়ার জন্য ছুটি নিয়েছে। সেই কারণেই ভোটের বাজারে পর্যটকদের স্বাগত জানাতে পারছে না দিঘা। আগে থেকেই এই বন্ধের কথা ঘোষণা করা হয়। 

আরও পড়ুন- তৃণমূলকে ভোট না দেওয়ায় ভোটারদের মারধর, গড়বেতায় তুমুল উত্তেজনা

পাশাপাশি শোনা যাচ্ছে এক তারিখ অর্থাৎ পয়লা মে-তেও বন্ধ থাকতে পারে দিঘা। যদিও এই নিয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। তবে নন্দীগ্রামে ভোটের জেরে এই দিনও দিঘা বন্ধ থাকার সম্ভাবনা প্রবল। যার ফলে পর্যটনের ওপপর এক বড় কোপ, টানা এক মাস ধরে চলতে থাকা ভোট পর্বের জেরে পর্যটক যে কম থাকবে দিঘাতে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ফলে আবারও মাথায় হাত হোটেল মালিকদের।