হিউস্টনে পৌঁছেই সেখানে বসবাসকারী কাশ্মীরি পন্ডিত সম্প্রদায়ের সঙ্গে দেখা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের জন্য দারুণ সমর্থন পেলেন তাঁদের থেকে। এমনকী আবেগে এক কাশ্মীরি পন্ডিত প্রধানমন্ত্রীর হাতে চুমুও খেলেন।

সুরিন্দর কল নামে এক কাশ্মীরি পন্ডিত, সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর কাছে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁদের সাক্ষাতের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিয়েছন। তিনি জানিয়েছেন মোদী তাঁদের বলেছেন, কাশ্মীরি পন্ডিতদের অনেক কষ্ট ভোগ করতে হয়েছে। তবে এবার তাঁর সরকার এক নতুন কাশ্মীর গড়ে তুলবে। আর কোনও দুর্ভোগ থাকবে না। কাশ্মীরি পন্ডিতদের যুব সম্প্রদায় মোদীকে আগে থেকে তৈরি করা একটি বার্তা পাঠ করে শোনান। সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা ৭ লক্ষ কাশ্মীরি পন্ডিতদের পক্ষ থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করার জন্য মোদীকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

কাশ্মীরি পণ্ডিতদের পক্ষ থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি স্মারকলিপি জমা দিয়েছেন সুরিন্দর। সেখানে তাঁরা কাশ্মীরে ফিরে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। তাঁরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের আওতায় কাশ্মীরের সব সম্প্রদায়কে নিয়ে একটি পরামর্শদাতা কমিটি  বা টাস্ক ফোর্স গঠন করার। সব সম্প্রদায়ের নেতারা বসে ঠিক করবেন কীভাবে পন্ডিতরা ফের কাশ্মীরে ফিরে যেতে পারবেন।  

আরও পড়ুন - মোদীর পা পড়তেই স্বচ্ছ হিউস্টন, অনবদ্য কাজে জিতে নিলেন কোটি হৃদয়, দেখুন ভিডিও

আরো পড়ুন - নমো থালি ও নমো মিঠাই নিয়ে তৈরি কিরণ, কী কী পদ থাকছে 'হাউডি মোদী'-র ভোজে

আরো পড়ুন - হিউস্টনে প্রধানমন্ত্রী, এক ঝাঁক অনাবাসী ভারতীয় উষ্ণ অভ্যর্থনা জানালেন মোদীকে

আরো পড়ুন - মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোদীকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানালেন রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী ভারতীয় বংশোদ্ভূত তুলসি গাব্বার্ড

নরেন্দ্র মোদী হাসিমুখেই তাঁদের সেই স্মারকলিপি গ্রহণ করেছেন। পরে সংবাদমাধ্যমকে প্রধানমন্ত্রী জানান, কাশ্মীরি পন্ডিতরা সকলেই একযোগে কাশ্মীর নিয়ে ভারত সরকারের পদক্ষেপকে সমর্থন করেছেন। তাঁরা জানিয়েছেন শান্তিপূর্ণ কাশ্মীর গঠনের যে স্বপ্ন মোদী দেখছেন তা পূরণে পন্ডিত সম্প্রদায় ভারত সরকারের পাশে থাকবে।  

তবে শুধু কাশ্মীরি পন্ডিতদের সঙ্গেই নয়, মোদী হিউস্টনে সাক্ষাত করেছেন বোহরা মুসলিম সম্প্রদায়ের সঙ্গেও। বোহরা মুসলিমরাও সম্বর্ধনা দেন প্রধানমন্ত্রীকে। তার আগে শিখ সম্প্রদায়ের কয়েকজন প্রতিনিধির সঙ্গেও আদানপ্রদান হয় নরেন্দ্র মোদীর। মোদী সরকারে বিভিন্ন সাহসী পদক্ষেপের প্রশংসা করার পাশাপাশি তাঁরাও একটি স্মারকলিপি জমা দিয়েছেন।