পৈলানের জনসভা থেকে মোদী-শাহকে আক্রমণ করলেন অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার একই সময়ে এক জেলায় শাহ-র পাশপাশি মমতা-অভিষেকেরও সভা। তাই কিছু সময় আগে শাহ-বলে যাওয়া কথাকে নিশান করলেন তৃণমূলের যুবরাজ। 

আরও পড়ুন, 'দিদির নজর শুধুই ভাইপো কল্যাণে', সাগর থেকে মমতার সভায় 'জয় শ্রীরাম' ধ্বনি পাঠালেন শাহ  


এদিন পৈলানের সভা থেকে অভিষেক প্রশ্ন তুললেন  'এতদিন সোনার গুজরাট-সোনার রাজস্থান হয়নি কেন'। প্রসঙ্গত, একই দিনে একই জেলায় সাগরে কিছুক্ষণ আগেই সভা শেষ করেছেন অমিত শাহ। এদিন শাহ বলেন,  মোদী সরকার একবার সুযোগ দেওয়া হোক। তাহলে ৫ বছরে সোনার বাংলা বানাবে বিজেপি। তবে তিনি মনে করান 'পরিবর্তন মানে ক্ষমতার বদল নয়' বলেও ঘাসফুল শিবিরকে খোঁচা দেন তিনি। এবং হুঁশিয়ারি দিয়ে মনে করান বাংলা আগে থেকে সোনার বাংলা। তাই নতুন করে কিছু করতে হবে না। অভিষেক এদিন শাহ তথা গেরুয়া শিবিরকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বলেন, 'দক্ষিণ ২৪ পরগণায় ৩১ এ ৩১ই করতে হবে'।

আরও পড়ুন, আজ ময়দানে মুখোমুখি ২, একইদিনে সাগরে শাহ-পৈলানে মমতার সভা, ক্ষুব্ধ BJP  


তিনি এদিন বিজেপিকে গো হারা হারানোর চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন। তিনি বলেন যদি শূন্য করে ওদের হারাতে না পারি, তাহলে রাজনীতির ময়দানে পা রাখবো না, তৃণমূলের হয়ে ভোট চাইবো না।  এরই সঙ্গে তিনি আবার স্বাস্থ্য সাথী প্রসঙ্গ তুলেন বলেন, দিলীপ ঘোষের বাড়ির লোকেরা স্বাস্থ্যসাথী কার্ড তুলে মা-মাটি-মানুষের জয়গান গাইছে। প্রসঙ্গ সম্প্রতি জনতার কাছে মিডিয়ায় উঠে আসে বিজেপির রাজ্য সভাপতির স্বাস্থ্যসাথী কার্ড হাতে নেওয়ার দৃশ্য। মূলত সেই দৃশ্যকে হাতে রেখে দিলীপ ঘোষকে খোঁচা দিয়ে নিজের বাড়ির লোককে সামলানোর কথা বলে আয়ুশমান ভারতকে নিশানা করেন অভিষেক। প্রসঙ্গত, এযাবতকাল অবদি যতো সভা একই দিনে হয়েছে, তা মূলত সময় আগে-পিছে এবং স্থানও আলাদা। তবে এবার একই জেলায় শাসক দল এবং বিরোধী দলের এমন ময়দানে নেমে লড়ায়ের দৃশ্য এই প্রথম।