ভোটের আগে বাংলায় সাড়া ফেলতে ভিন রাজ্যের হেভিওয়েট নেতাদের আনছে বিজেপি। অনুব্রতর গড় বীরভূমে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সহ স্মৃতি ইরানিরা জনসভা করতে পারেন বলেও সূত্রের খবর। বাংলার বাইরে থাকা আসা বিজেপির হেভিওয়েট নেতাদের তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের সাদামোটা জীবনযাত্রার সঙ্গে  তুলনা করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খোঁচা দিলেন অভিষেক।

আরও পড়ুন-বিজেপির 'পরিবর্তন যাত্রা'র পাল্টা মমতার 'দিদির দূত', এই অ্যাপে মুখ্যমন্ত্রীর সরসারি কথা বলতে পারবেন

শনিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলপিতে জনসভা করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়। সেই জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রীর সাদামোটা জীবনযাত্রার প্রসঙ্গ তুলে অভিষেক বলেন, ''মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় ৫ ফুট ২ ইঞ্চির একজন মহিলা। টালির ছাদের নীচে থাকেন। হাওয়াই চটি পরে গ্রামাঞ্চলে ঘুরে বেড়ান। তাঁর বিরুদ্ধে লড়াই করতে উত্তরপ্রদেশ, গুজরাত থেকে নেতাদের টেনে আনতে হচ্ছে। মনে রাখবেন উত্তরপ্রদেশের গুটখার থুতুতে বাংলার লোহায় জং ধরবে না''।

আরও পড়ুন-ট্যুইটার থেকে মমতার ছবি সরালেন দীনেশ ত্রিবেদী, সেখানে বসলেন স্বামী বিবেকানন্দ

পাশাপাশি, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের বহিরাগত বলেও তীব্র কটাক্ষ করেন অভিষেক। তিনি বলেন, ''আমি নাম নিয়ে বলছি, অমিত শাহ বহিরাগত। রাজনাথ সিং বহিরাগত। কৈলাস বিজয়বর্গীয় বহিরাগত। দিলীপ ঘোষ গুন্ডা। আমপানের সময় কোথায় ছিলেন এঁরা। প্রতি বছর বাংলা থেকে ৭৫ হাজার কোটি টাকা কেটে নিয়ে যায় কেন্দ্র। ওই টাকা কি মোদীর টাকা? বসিরহাটে ১৫ মিনিট হেলিকপ্টার নামিয়ে পালিয়ে গিয়েছেন মোদী। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় জেলায় জেলায় ঘুরছেন। ভোটে জিতলে বাংলার মানুষকে ১৮ হাজার টাকা করে দেবেন মমতা। এভাবে কেনা যায় না''। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে নিশানা করে তীব্র কটাক্ষ অভিষেকের।