শুক্রবারই, বাংলার বিধানসভা নির্বাচনের নির্ঘন্ট প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। জারি হয়ে গিয়েছে আদর্শ আচরণ বিধি। আর ভোট ঘোষণার ২৪ ঘন্টার মধ্যেই প্রশাসনিক স্তরে বড়সড় রদবদল ঘটালো কমিশন। সরিয়ে দেওয়া হল রাজ্যের এডিজি আইন-শৃঙ্খলা জাভেদ শামিমকে। তাঁর জায়গায় দায়িত্ব নিচ্ছেন এতদিন দমকলের ডিজি পদে থাকা আইপিএস অফিসার সি জগমোহন। জাভেদ শামিমকে করা হল দমকলের ডিজি। ফলে নির্বাচন সংক্রান্ত কোনও কাজের দায়িত্ব তিনি পাবেন না।

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের শুরুতেই আইপিএস জ্ঞানবন্ত সিং-কে সরিয়ে এডিজি আইন শৃঙ্খলার পদে আনা হয়েছিল জাভেদ শামিমকে। জ্ঞানবন্ত সিং-কে নিয়ে  রাজ্যপাল জগদীপ ধনখরের লাগাতার অভিযোগের মুখে তাঁকে একপ্রকার বাধ্য হয়েই সরিয়ে দিয়েছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার। তাঁর বদলে সেই পদে আনা হয়েছিল স্বচ্ছ ভাবমূর্তি থাকা আইপিএস অফিসার জাভেদ শামিমকে। কিন্তু, তাঁর মেয়াদ মাত্র ৩ সপ্তাহ দীর্ঘ হল।

এর আগে ২০১৬ সালের নির্বাচনের সময় বিধাননগরে শান্তিপূর্ণ ভোট সংঘটিত করে প্রশংসিত হয়েছিলেন শামিম। কিন্তু, ভোট মিটতেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে সেই পদ থেকে সরিয়ে দিয়ে অপরাধ দমন শাখায় পাঠিয়ে দিয়েছিলেন। ৫ বছর পর ভোটের আগে এডিজি আইন শৃঙ্খলা পদে অবশ্য তাঁর উপরই ভরসা রেখেছিলেন মমতা।

এই প্রশাসনিক রদবদলের বিষয়ে তৃণমূল নেতা সৌগত রায় বলেছেন, জাভেদ শামিম এবং জগ মোহন দুজনেই বাংলার ভালো পুলিশ কর্তা। কিন্তু, বিজেপি আইন শৃঙ্খলা নিয়ে কমিশনে অভিযোগ জানানোর দিনই এই রদবদলের ফলে এর পিছনে রাজনীতির খেলা আছে বলে সন্দেহ জাগছে তাঁদের। অন্যদিকে, বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদারের দাবি ভোটের আগ দিয়েই যে প্রশাসনিক রদবদল করা হয়েছিল, তা সম্ভবত কমিশনের পছন্দ হয়নি। তাই জাভেদ শামিমকে এই  পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হল।