মিঠু সাহা, শিলিগুড়়ি: ছোট একটি চার চাকা গাড়ি। গাড়ি সিলিং-টাকে ব্যবহার করতে চেয়েছিল পাচারকারী। কিন্তু শেষরক্ষা আর হল কই! শিলিগুড়ি ফের সোনা পাচারের ছক বানচাল করে দিলেন কেন্দ্রীয় রাজস্ব গোয়েন্দা দপ্তরের আধিকারিকরা। হাতেনাতে ধরা পড়েছে দু'জন।

আরও পড়ুন: খড়দহে বিদায়ী কাউন্সিলরের বাড়িতে পড়ল বোমা, পিছনে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল

ধৃতেরা হল রাকেশ কুমার গুপ্তা ও  হরিশচন্দ প্রসাদ। বাড়ি, কলকাতার খিদিরপুর অঞ্চলে। ইন্দো-মায়ানমার সীমান্ত থেকে মণিপুর ও আসাম হয়ে কলকাতা। দীর্ঘ এই যাত্রাপথে শিলিগুড়িকে কি করিডর হিসেবে ব্য়বহার করছে সোনা পাচারকারীরা? জানা গিয়েছে, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে বুধবার শিলিগুড়ি শহরের বর্ধমান রোড লাগোয়া এলাকায় অভিযান চালান কেন্দ্রীয় রাজস্ব গোয়েন্দা বিভাগের আধিকারিকরা। তিরিশ সোনার বিস্কুট-সহ ধরা পড়ে রাকেশ ও হরিশচন্দ।

আরও পড়ুন: রাজ্যপালের নামে থানায় অভিযোগ দায়ের,এই দলের মুখেও 'তৃণমূলের কথা'

আরও পড়ুন: মাছ ধরার জাল নিয়ে বচসা, মালদহে দুই যুবককে 'কুপিয়ে খুন' প্রতিবেশীর

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, একটি ছোট চার চাকার গাড়ি করে কলকাতা উদ্দেশ্য রওনা দিয়েছিল ধৃতেরা। গাড়ির ভিতরে সিলিং-এর আড়ালে লুকানো ছিল সোনার বিস্কুট। এক-একটি বিস্কুটের ওজন আনুমানিক ১৬৬ গ্রাম। যে পরিমাণ সোনা পাওয়া গিয়েছে, তার আনুমানিক বাজার মূল্য দু'কোটি টাকারও বেশি।