শোভন এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে নিয়ে বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের করা মন্তব্যকে সমর্থন করলেন না বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এ দিন খড়্গপুরে জয় বন্দ্যোপাধ্য়ায়কে বার্তা দিয়ে দিলীপবাবু বলে দিলেন, 'সবার সবকিছু বলার অধিকার নেই।'

মঙ্গলবার বর্ধমানে একটি সভায় বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায় দেবশ্রী রায়ের বিজেপি-তে যোগদান নিয়ে শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করেন। দু' সম্পর্ক নিয়ে প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি জয় বন্দ্য়োপাধ্যায় বলেন, দেবশ্রী রায় যোগদান করলে শোভন- বৈশাখী চাইলে বিজেপি ছেড়ে চলেও যেতে পারেন। শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে সম্পর্কের সঙ্গে পরকীয়ার তুলনা টানেন তিনি। জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যে স্বাভাবিকভাবেই রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের অস্বস্তি  বাড়ে। 

আরও পড়ুন- পরকীয়া বাংলার সংস্কৃতি নয়, শোভন- বৈশাখীকে খোঁচা বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের

আরও পড়ুন- ভাত- ডাল থেকে পরকীয়া, বিজেপি-তে গিয়ে কী কী সইতে হচ্ছে শোভন- বৈশাখীকে

দেবশ্রী রায়ের যোগদান নিয়ে কারও কোনও শর্ত যে মানা হবে না তা আগেই স্পষ্ট করে শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে বার্তা দিয়েছেন বিজেপি রাজ্য় সভাপতি। এ দিন অবশ্য জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্তব্যকে সমর্থন করেননি তিনি। তবে এটাও ঠিক, দেবশ্রী রায়কে নিয়ে আগের মন্তব্য থেকেও সরে আসেননি খড়্গপুরের সাংসদ। 

জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের করা মন্তব্য নিয়ে দিলীপবাবু বলেন, 'প্রত্যেকেই নিজের মতামত দিতেই পারেন। কিন্তু চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে দল। আর সবার সব বিষয়ে কথা বলার অধিকারও নেই।' শোভন- বৈশাখীকে নিয়ে দলের মধ্যেই যে ক্রমশ অস্বস্তি বাড়ছে, তা এ দিন আরও একবার স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। সেই কারণেই হয়তো শক্ত হাতে রাশ ধরতে চাইছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। শোভন বৈশাখীর শর্ত সামলে দেবশ্রী রায়কে নিয়ে শেষ পর্যন্ত কী সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি, সেদিকেই তাকিয়ে রাজ্যের রাজনৈতিক মহল।