Asianet News BanglaAsianet News Bangla

গলার নলি কেটে জঙ্গলে ফেলে দেওয়া হল ইঞ্জিনিয়ারিং-এর ছাত্রকে, নৃশংস হত্যাকাণ্ডে শিহরিত বীরভূমের চৌপাহাড়ি

বীরভূমের ইলামবাজার থানার চৌপাহাড়ি জঙ্গল থেকে গলার নলি কাটা অবস্থায় উদ্ধার হয় এক যুবকের দেহ। পরে প্রকাশ্যে আসে যুবকের নাম ও পরিচয়। 

Engineering student kidnapped and murdered in Birbhum ANBSS
Author
First Published Sep 11, 2022, 11:45 AM IST

বাগুইআটির পর আবার এক ছাত্রকে অপহরণ করে খুন! কলকাতার ২ নাবালকের জোড়া খুন কাণ্ডের পর এ বারের ঘটনা বীরভূমে। অপহরণ করে রেখে খুন করে দেওয়া হল ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্রকে। মৃতের নাম সৈয়দ সালাউদ্দিন। তাঁর বাড়ি বীরভূমের খয়রাশোল থানার আহমেদপুর গ্রামে। রবিবার চৌপাহাড়ি জঙ্গলে পাওয়া গেছে তার মৃতদেহ।

নিহত ছাত্রের পরিবার জানিয়েছে, আসানসোলের ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে পড়াশুনা করতেন উনিশ বছরের সৈয়দ সালাউদ্দিন। বন্ধুদের সঙ্গে পিকনিকে যাবেন বলে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন তিনি। এর পর শনিবার রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ তাঁর বাবার ফোন নম্বরে সৈয়দের ফোন থেকেই কল করে জানানো হয় যে, তাঁর ছেলেকে অপহরণ করা হয়েছে। ছেলেকে ফিরে পেতে হলে মুক্তিপণ দিতে হবে ৩০ লক্ষ টাকা। অপহরণকারীরা হুমকির সুরে সালাউদ্দিনের পরিবারকে এও জানায়, “পুলিশে জানালে ছেলেকে আর ফিরে পাবে না”। এরপর মুক্তিপণের অপেক্ষা করেনি আততায়ীরা। রবিবার সকালেই ছাত্রের দেহ উদ্ধার হয়। সম্পূর্ণ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। সন্দেহভাজন এক যুবককে আটক করা হয়েছে, যার নাম শেখ সলমন। তিনি মৃতের বন্ধু বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাঁকে প্রশ্ন করা শুরু করেছে পুলিশ। এ পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী জানা যাচ্ছে,  কিছু দিন আগে সৈয়দ সালাউদ্দিনের কাছে ২ লক্ষ টাকা ধার চেয়েছিলেন এই ধৃত সলমন।

পুলিশের তদন্ত শুরু হলে খবর আসে, রবিবার সকালে বীরভূমের ইলামবাজার থানার চৌপাহাড়ি জঙ্গল থেকে এক যুবকের দেহ পাওয়া গেছে। তাঁর গলার নলি কাটা ছিল। পরে প্রকাশ্যে আসে, মৃত যুবকই নিখোঁজ ছাত্র সৈয়দ সালাউদ্দিন। মৃতের পরিবার দাবি করেছে, তাদের ছেলেকে অপহরণ করে খুন করা হয়েছে। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে সন্দেহভাজন শেখ সলমনকে আটক করেছে পুলিশ।

বীরভূমের পুলিশ সুপার নগেন্দ্র ত্রিপাঠী সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ‘‘মৃতের পরিবারের কাছে ২ ঘণ্টার মধ্যে লক্ষাধিক টাকা চেয়ে রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ ফোন করা হয়। ফোন আসার পরেই মল্লারপুর থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। তদন্তে নামে পুলিশের মোট ৩টি দল।  মৃতের ফোনের টাওয়ার লোকেশন চিহ্নিত করে দেহ উদ্ধার হয়।” পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, পরিকল্পনামাফিক খুন করা হয়েছে বলে প্রাথমিক অনুমান করা হচ্ছে। এর কারণ হিসেবে তিনি জানান, ‘‘খুন করার জন্য আগে থেকে চাকু কেনা হয়েছিল। তার পরেই এই খুন করা হয়েছে।’’

সূত্রের খবর, রবিবার ভোরে ইলামবাজারের চৌপাহাড়ি জঙ্গলের যে এলাকা থেকে ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্রের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে, তার থেকে কিছুটা দূরে পাওয়া গেছে তার বাইকটিও। ওই এলাকা থেকে বেশ কিছু নেশা করার দ্রব্যও পেয়েছে পুলিশ। 


আরও পড়ুন-
বিমানবন্দরে বাধার মুখে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের শ্যালিকা, ব্যাংকক যাওয়া আটকে দিল ইডি
রুশ বাহিনীর সামনে বুক চিতিয়ে দাঁড়াল ইউক্রেন, চূড়ান্ত প্রতিদ্বন্দ্বীতায় পড়ে খারকিভ থেকে সেনা সরিয়ে নিল রাশিয়া
ফাইবারগ্লাসের প্রতিমা শিল্পীদের মুখে চওড়া হাসি, কোভিড পরিস্থিতি কাটিয়ে এবছরের দুর্গাপুজোয় প্রচুর বরাত

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios