নামী রিটেল ফুড চেনে খাবারের গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন ওঠে অহরহ। এবার সেই তালিকায় নবতম সংযোজন ক্যাথলিন কনফেকশনারিজ। অভিযোগ, গ্রাহককে ছাতাপড়া খাবার বিক্রি করেছে চাকদহের ক্যাথলিন আউটলেট।

কেন রাতারাতি বন্ধ করে দেওয়া হল এই দোকান ? নদীয়ার চাকদহ পুরসভার 10 নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা সুব্রত হালদার জানান, বুধবার সকালে চাকদহ রথতলা এলাকায় ক্য়াথলিনের একটি রিটেল চেন থেকে খাবার কেনেন তিনি। বাড়িতে অতিথি আসায় পনির প্যাটিস কিনে নিয়ে যান তিনি। পরে বাড়ি গিয়ে দেখেন  খাবার পচা ও ফাঙ্গাসযুক্ত। তখনই সুব্রতবাবু ওই দোকানে গিয়ে পচা খাবারের প্রতিবাদ করেন। এ নিয়ে চাকদহ বিডিও র কাছে ওই দোকানের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন সুব্রতবাবু। অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে খাবারের নমুনা সংগ্রহ করেন বিডিও পুস্পেন চ্যাটার্জি। প্রাথমিক তদন্তের পর সাময়িকভাবে দোকানটি সিল করে দেওয়া হয়েছে। দোকানের কোনও ফুড লাইসেন্স ছিল কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কলকাতার ওই রিটেল চেন খাবার সংস্থার থেকে বৈধ অনুমতিপত্র নিয়ে দোকানটি চালানো হচ্ছিল কিনা তাও তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। 

আরও পড়ুন খুন করার চেষ্টা করছেন মমতা, বলছেন বিজেপির এই হেভিওয়েট নেতা

আরও পড়ুন একাধিক বাড়িতে কম্পন, বউবাজারে ভাঙল আরও এক বাড়ি

তবে এই প্রথমবার নয়, এর আগেও বহু রিটেল চেনের আউটলেটে হানা দিয়ে পচা খাবার পায় পুরসভা। অনেক ক্ষেত্রে সাময়িক ভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয় দোকান। কিছুদিন আগে, খাবারের নমুনা পরীক্ষার জন্য একটা মোবাইল ভ্য়ানের ব্য়বস্থা করেছে পুরসভা। কোথাও ভেজাল খাবার বিক্রি হচ্ছে সন্দেহ হলেই ডাকা যেতে পারে এই ভ্য়ানকে। কিছুদিন আগে প্লাস্টিকের ডিমের অভিযোগ এসেছিল এক ক্রেতার কাছ থেকে। পরে যদিও নমুনা পরীক্ষা করে দেখা যায়। আতঙ্কের কোনও কারণ নেই।