আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: নেশার টানে শেষ কিনা অপহরণের গল্প ফেঁদে বাবার কাছ থেকে টাকা আদায়ের চেষ্টা! কিন্তু শেষরক্ষা হল না। পুলিশের তৎপরতায় ধরা পড়ে গেল 'গুণধর' ছেলে ও তার দুই বন্ধু। ধৃতদের তিনদিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের সিউড়িতে।

আরও পড়ুন: চিনা মাঞ্জা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা জারি হাইকোর্টের, রাজ্যকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ

মূল অভিযুক্তের নাম আমির খান। বাড়ি, সিউড়ির গরুইমোড়া গ্রামে। শনিবার মায়ের সঙ্গে ঝগড়া করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান আমির। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, ফোনে জানানো হয়, ওই যুবককে অপহরণ করা হয়েছে। মুক্তি বাবদ দিতে হবে পাঁচ লক্ষ টাকা! কী ব্যাপার? পুলিশের দ্বারস্থ হন আমিরের বাবা। পুলিশের পরামর্শে যে নম্বর থেকে ফোন এসেছিল, সেই নম্বরে ফোন করে টাকা দেওয়ার  কথা জানিয়ে দেন তিনি। ঠিক হয়, সিউড়ির তাসরকাটা জঙ্গলে  'অপহরণকারী'-কে টাকা পৌঁছে দেওয়া হবে। এদিকে অভিযুক্তদের ধরতে ওত পেতেছিলেন পুলিশকর্মীরা। আর তাতেই কেল্লা ফতে! হাতনাতে ধরা পড়ে যায় আমির খান ও তার দুই বন্ধু। 

আরও পড়ুন: একশো দিনে প্রকল্পে কর্মরত গৃহবধূর 'শ্লীলতাহানি', অভিযুক্তকে জুতোপেট করলেন মহিলারা

কী এমন কাণ্ড ঘটাল সে? পুলিশের দাবি, নেশার টাকা জোগাড় করতেই অপহরণের গল্প ফাদে আমির। শনিবার দুপুরে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিল সে। রাতে বন্ধুদের সঙ্গে নেশার করার সময়েই বাবার কাছে মুক্তিপণ চাওয়ার পরিকল্পনা করে ফেলেন ওই যুবক।