পুরুলিয়ায় এসে দিল্লির হিংসা নিয়ে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এদিন তিনি বলেন, মোদী  রং খেলবেন না  তার কারণ অনেক আগে থেকেই দিল্লিতে রং খেলা চলছে। দিল্লির বুকে উনি যে রক্তের হোলি খেললেন, তার জন্য সারা বিশ্ববাসীর কাছে ভারতবাসীর সম্মান নষ্ট হয়েছে। উনি দিল্লিতে গণহত্যা সংঘটিত করে লজ্জা পেলেন না । তখন তো তিনদিন চারদিন চুপ করে থাকলেন। 

মিথ্য়ে কেসে ফাঁসানো হচ্ছে, মোদীর সঙ্গে বৈঠকে ক্ষোভ দিলীপের

তবে শুধু দিল্লির হিংসা নিয়েই মোদীকে আক্রমণ করেননি তৃণমূলের মহাসচিব। করোনা নিয়ন্ত্রণেও মোদী সরকারের সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন পার্থবাবু। তিনি বলেন, এই রোগকে নিয়ন্ত্রণ করার বিষয়ে সরকার কী ব্যবস্থা নিয়েছে । তার কোনও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা সম্পর্কে দেশবাসীকে জানাতে পারেনি  সরকার। 

নৈহাটিতে বিজেপি কর্মীকে বন্দুকের বাঁট দিয়ে মার, দায় ঝেড়ে তৃণমূল বললো 'ওদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব'

এদিন পুরুলিয়ার সিধু কানু বীরসা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় আমন্ত্রিত হলেও ডাকা হয়নি রাজ্যপালকে।  এই প্রশ্ন শুনতেই অবশ্য় রেগে যান পার্থবাবু। তিনি বলেন, কে বলল রাজ্যপালকে নিমন্ত্রণ করা হয়নি ?যদি না করা হয় তাতে আপনাদের কী? পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী জানান, রাজ্যপালের সঙ্গে রাজ্য সরকারের কোনো দূরত্ব নেই। সাংবাদিকরা এ বিষয়টি জটিল করছে। রাজ্যপালকে নিমন্ত্রণ করা হয়েছে। ওনার সঙ্গে আমার ফোনে কথা হয়েছে। 

পুরভোটে প্রাণের ভয়ে বিক্ষোভ শিক্ষকদের, পুরো নিরাপত্তা না থাকলে ভোটের ডিউটি নয়

গতকালই টুইটারে করোনা নিয়ে মন্তব্য় করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। টুইটে প্রধানমন্ত্রী লেখেন, নোভেল করোনাভাইরাসের কারণে এই বছর তিনি কোনওরকম দোলের অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন না।  পৃথিবীজুড়ে বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিচ্ছেন-একসঙ্গে যাতে বহু সংখ্যক মানুষ দোলের অনুষ্ঠানে যোগ না দেন। এতে করোনাভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কা থাকবে। রাজ্য় রাজ্নৈতিক মহলের মতে, নাম না করে আসলে মোদীকেই করোনা নিয়ে নিশানা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।