প্রথম টেস্টে হারের ধাক্কা সহ্য করতে হয়েছে পাকিস্তানকে। দ্বিতীয় টেস্টেও সেই ধারাই বজায় থাকবে বলেই ইঙ্গিত। অ্যাডিলেডে দিন রাতের টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং বা বোলিং কোনও কিছুরই তল খুঁজে পেল না পাকিস্তান। তাই ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের শেষে স্কোর বোর্ড বলে দিচ্ছে তৃতীয় দিনের শুরু থেকেই ইনিংসে হার বাঁচানোর লড়াই করতে হবে পাক শিবিরকে। প্রথম ইনিংসে ৫৮৯ রান স্কোর বোর্ডে তুলেছে অস্ট্রেলিয়া। তার জবাব দিতে নেমে দ্বিতীয় দিনের শেষে ছয় পাক ব্যাটসম্যান প্যাভেলিয়ানের ফিরে গেছেন। স্টার্কের আগুনে ঝলসে গেল পাক ব্যাটিং। স্কোর বোর্ডে মাত্র ৯৬ রান। 

আরও পড়ুন - নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনে পিছিয়ে পড়লো ইংল্যান্ড

অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার নিজের খারাপর সময় কাটিয়ে ফেলেছেন। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে কেরিয়ারের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরি করলেন অজি ওপেনার। ৩৩৫ রানে অপরাজিত থাকলেন তিনি। ডন ব্র্যাডম্যানকে একই ম্যাচে দুবার টপকে গেলেন ওয়ার্নার। অ্যাডিলেডে ২৯৯ রানের ইনিংস খেলেছিলেন ডন। ওয়ার্নার ট্রিপল সেঞ্চুরি হাঁকালেন। এরপর ডনের ৩৩৪ রানের রেকর্ড টপকে গেলেন অজি ওপেনার। যে ছন্দে ব্যাটিং করছিলেন ওয়ার্নার তাতে তাতে লারার ৪০০ রানও সুরক্ষিত ছিল না। কিন্তু পাইন সেই সুযোগ দিলেন না। তাতে অনেক ক্রিকেট সমর্থকই সমালোচনা করছেন অজি অধিনায়ক পাইনের। 

আরও পড়ুন - ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড ভাঙলেন ওয়ার্নার, দ্রুততম ৭ হাজার রানের মালিক হলেন স্মিথ

এদিকে দ্বিতীয় দিন ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৩৬ রানের ইনিংস খেললেন প্রাক্তন অজি অধিনয়াক স্টিভ স্মিথ। কিন্তু এই ৩৬ রানই তাঁকে একটা রেকর্ড দিয়ে গেল। টেস্ট ক্রিকেট সব থেকে দ্রুত সাত হাজার রান করার কৃতিত্ব অর্জন করলেন স্টিভ। অস্ট্রেলিয়ার এমন দাপুটে ব্যাটিং দেখে পাকিস্কানের সমর্থক সহ প্রাক্তন ক্রিকেটাররা বোলাদের সমালোচনা করলেন। কিন্তু পাকিস্তান যখন ব্যাট হাতে নামল তখনও যে ধাক্কা খাওয়ার ছবিতে বদল হয়নি। মিচেল স্টার্কের বলের সামনে তাসের ঘরের মত ভেঙে পরল পাকিস্তানের ব্যাটিং। চার উইকেট নিলেন স্টার্ক। একটি করে উইকেট হ্যাজেলউড ও প্যাট কামিন্সের। এবারও পাকিস্তানের হয়ে একাই লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন বাবর আজম। ৪৩ রানে অপরাজিত আছেন তিনি। কিন্তু একা বাবর পাকিস্তানকে যে বাঁচাতে পারবেন না। 

আরও পড়ুন - ধোনিকে নিয়ে সম্পুর্ণ স্বচ্ছতা আছে, বলছেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়