নিজের দাদা স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায় এখনও করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। নিজেও পরিবার সহ কাটিয়েছেন কোয়ারেন্টাই। করোনা পরীক্ষা হয়েছে নিজেরও। সেই ফল নেগেটিভ আসায় স্বস্তি পেয়েছেন সকলে। কিন্তু তার নাম যে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। লড়াই থেকে পিছিয়ে এসিয়ে পাত্র তিনি নয়। তা সে ২২ গজ হোক, বোর্ডের প্রশাসনিক কাজকর্ম হোক আর মারণ করোনা ভাইরাস হোক। লড়াই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় চালিয়ে যাবেনই। করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রথম থেকে লড়াই চালিয়ে আসছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট। তা সে অনুদান দেওয়া হোক বা করোনা যোদ্ধাদের সম্মান দেওয়া হোক। এবার করোনা আক্রান্ত এক সহায় সম্বলহীন পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্য়ায়।

আরও পড়ুনঃবিস্ফোরক যুবরাজ সিং,কেরিয়ারের শেষে প্রাপ্য সম্মান দেয়নি বিসিসিআই

হুগলি চুঁচুড়ার কদমতলার বাসিন্দা সৌরভ বসুর পরিবার। সম্প্রতি করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন সৌরভ বসু। অবস্থার দ্রুত অবনতি হওয়ায় যান সৌরভ বসু। বাড়িতে তার স্ত্রী সুস্মিতা বসু জ্বর,সর্দি-কাশি করোনার সবরকম উপসর্গ নিয়ে ভুগছেন। দুই সন্তানের শরীরেও রয়েছে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ। কিন্তু নিজের সন্তানদের করোনা পরীক্ষা করিয়ে উঠতে পারছিলেন না সুস্মিতা। অনেককে বলেও সমস্যার কোনও সমাধান হয়নি। বাড়িতেই বেশ কয়েক দিন ভুগছিল গোটা পরিবারটা। অসহায় পরিবারটির পাশে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসছিলেন না কেউ। পরে পারিবারিক এক বন্ধুর মাধ্যমে কোনওভাবে খবর পৌছয় সৌরভ গঙ্গোপাধ্য়ায়ের কাছে। এই পরিবারের এমন দুরবস্থার কথা শুনে এগিয়ে আসেন বিসিসিআই সভাপতি। নিজের উদ্যোগে  ফোন নাম্বার জোগাড় করে যোগাযোগ করেন চুঁচুড়ার এসডিও অরিন্দম বিশ্বাসের সঙ্গে। এরপর নিজের পরিচয় দিয়ে প্রথমে অরিন্দম বিশ্বাসকে এসএমএস পাঠান সৌরভ। প্রাথমিকভাবে অরিন্দম বিশ্বাসও করতে পারছিলেন না যে দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক তাকে ম্যাসেজ করেছেন। এরপর সৌরভ ফনো করে পরিবারের খবরটি এসডিওকে জানান। অনুরোধ করেন পরিবারটির করোনা পরীক্ষা করানোর জন্য ও পাশে দাঁড়ানোর জন্য।

আরও পড়ুনঃশেষ হল ইপিএল, চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ম্যান ইউ এবং চেলসি

আরও পড়ুনঃপেনাল্টি নষ্ট করলেও জুভেন্তাসের খেতাব নিশ্চিত করলেন রোনাল্ডোই

সৌরভ গঙ্গোপাধ্য়ায়ের অনুরোধে তড়িঘরি ব্যবস্থা নেন চুঁচুড়ার এসডিও অরিন্দম বিশ্বাস। করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয় সুস্মিতা বসু ও তার সন্তানদের। বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট নিজে উদ্যোগ নিয়ে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন সে কথা বিশ্বাস করতে পারছেন না কেউই। এই অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাসও দিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। শুধু খেলার মাঠ বা প্রসাসনকি পদ নয়, মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইতেও যে সৌরভ গঙ্গোপাধ্য়ায় সামনে থেকে লড়াই চালিয়ে যাবেন, এই ঘটনা তারই প্রমাণ। সৌরভের ভূমিকাকে কুর্ণিশ জানিয়েছেন সকলেই।