করোন আবহে আর কিছু না হোক, টেস্ট ক্রিকেটের উত্তেজনা কিন্তু আগের থেকে অনেক গুন বেড়ে গিয়েছে। গত মাসে ইংল্যান্ড বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যে টানটান টেস্ট সিরিজের সাক্ষী থেকেছিল ক্রিকেট বিশ্ব। এবার ইংল্যান্ড বনাম পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টও রুদ্ধশ্বাস টেস্ট ম্যাচের। একটা সময় ইংল্যান্ড ভাবতেও পারেনি যে তারা এই প্রথম টেস্ট জিততে পারে। ম্যাচের প্রথম থেকেই দাপট দেখিয়েছে পাকিস্তান। কিন্তু ক্রিকেট অনিশ্চয়তার খেলা। অবশেষে প্রথম টেস্টে ইংল্যান্ডকে ৩ উইকেটে হারিয়ে দিল ব্রিটিশ লায়ন্সরা। 

আরও পড়ুনঃরোনাল্ডো-দিবালাদের নতুন কোচ হলেন কিংবদন্তী আন্দ্রে পিরলো

ম্যাচের প্রথম ইনিংসে শান মাসুদের ১৫৬ ও বাবর আজমের ৬৯ল রানের ইনিংসের সৌজন্যে ৩২৬ রান করে পাকিস্তান। ইংল্যান্ডের হয়ে ৩টি করে উইকেট পান জোফ্রা আর্চার ও স্টুয়ার্ট ব্রড। ২টি উইকেট পান ক্রিস ওকস ও একটি করে উইকেট পান জিমি অ্যান্ডারসন ও ডোম বেস। পাকিস্তানেরব৩২৬ রান তারা করতে নেমে ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংস শেষ হয়ে যায় মাত্র ২১৯ রানে। ব্রিটিশদের হয়ে সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন ওলি পোপ। বল হাতে পাকিস্তানের হয়ে ৪টি উইকেট নেন ইয়াসির শাহ। ২টি করে উইকেট পান মহম্মদ আব্বাস ও শাদাব খান। একটি করে উইকেট পান শাহিন আফ্রিদি ও নাসিম শাহ। প্রথম ইনিংসে ১১০৭ রাবের লিড নিয়ে ম্যাচে অনেকটাই অ্যাডভান্টেজ পায় পাক দল।

 

 

আরও পড়ুনঃমেসি ম্যাজিকে বাজি মাত বার্সার, কোয়ার্টার ফাইনালে লড়াই বায়ার্নের বিরুদ্ধে

আরও পড়ুনঃকরোনা প্রতিরোধক তোশক ব্যবহার করছেন মেসি, শুলেই নাকি গায়েব মহামারী ভাইরাস

দ্বিতীয় ইনিংসে বল হাতে ম্যাচে ফেরে ইংল্যান্ড। পাকিস্তানে দ্বিতীয় ইনিংস শেষ হয় মাত্র ১৬৯ রানে। ব্রড ৩টি, ওকস ও স্টোকস ২টি এবং আর্চার ও  বেস একটি করে উইকেট নেন। প্রথম ইনিংসে লিডের সৌজন্যে ইংল্যান্ড ২৭৭ রানের টার্গেট দেয় পাকিস্তান। রান তাড়া করতে নেমে ১১৭ রানের মধ্য ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ইংল্যান্ড দল। পাকিস্তানের জয় শুধু সময়ের অপেক্ষা ধরে নিয়েছিলেন অনেকেই। কিন্তু জস বাটলার ও ক্রিস ওকসের ইচ্ছা ছিল অন্যরকম। তারা দুজনে মিলে ইংল্যান্ডের ইনিংস টেনে নিয়ে যান। বাটলার ব্যক্তিগত ৭৫ রান করে আউট হন। অপরদিকে ৮৪ রাবের অপরাজিত ইনিংস খেলে ইংল্যান্ডের জয় নিশ্চিত করেন ওকস। দুই ইনিংস মিলিয়ে ১০৩ রান ও ৪টি উইকেট সংগ্রহ করে ম্যাচের সেরা হন ওকস। এই জের ফলে ৩ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল জো রুটের দল।