দলের মুখ যতই তারকা হোন না কেন, পারফরম্যান্স না থাকলে সব দিক থেকেই পিছিয়ে পরতে হবে। কথটা আবার প্রমাণ হল আইপিএলর ক্ষেত্রে। ভারতীয় ক্রিকেটের বিলিয়ন ডলার লিগে সব থেকে বড় ব্যান্ড হিসেবে পরিচিত শাহরুখ খানের কলকাতা নাইট রাইডার্স। একাধিক স্পনসর যেমন আছে তেমনই আছে অনেক অনেক সমর্থক। কিন্তু ২০১৯ আইপিএলে খারপ পারফরম্যান্স ধাক্কা দিয়ে গেল দলের ব্র্যান্ড ভ্যালুতেও। এক ধাক্কায় আট শতাংশ দর কমল কলকাতা নাইট রাইডার্সের। তবে সব থেকে খারাপ অবস্থা ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির দলের। একাধিক তারকা, অনেক স্পনসর, বিরাটের উপস্থিতি, প্রচুর প্রচুর সমর্থক থাকা সত্ত্বেও আইপিএল ব্র্যান্ড ভ্যালুর বিচারে সবার নিচে আরসিবি। এবার তাদেরও আট শতাংশ  বাজার দর পরেছে। কলকাতা নাইট রাইডার্সের ব্র্যান্ড ভ্যালু যেখানে ৬৩০ কোটি, সেখানে আর সিবিবি আছে ৫৯৫ কোটিতে। 

আরও পড়ুন - এক ওভারে ছয় ছক্কার রেকর্ড যুবির, সোনালি দিনের ১২ বছর পূর্তি

আইপিলের ২০১৯ এর চ্যাম্পিয়ন রোহিতের মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। তারা এবারও সবকটি ফ্রাঞ্চাইজির মধ্যে ব্র্যান্ড ভ্যালুর শীর্ষে। ৮.৫ শতাংশ বেড়ে রোহিতদের দলের দর এখন ৮০৯ কোটি টাকা। দুবছর আইপিএল না খেললেও নিজেদের দাপট ধরে রেখেছে ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস। এবারও সব থেকে বেশি বৃদ্ধির হার তাদের। ব্র্যান্ড ভ্যালুতে ১৩.১ শতাংশ বৃদ্ধি নিয়ে চেন্নাইয়ের দর এখন ৭৩২ কোটি টাকা। বাজার দরে উন্নতি হয়েছে সান রাইজার্স হায়দরাবাদ ও দিল্লি ক্যাপিটালসেরও। 

আরও পড়ুন - মোহালিতে বিরাট বিপ্লব, সাত উইকেটে ম্যাচ জয় টিম ইন্ডিয়ার

শাখরুখ ও বিরাটের দল মাঠের মতই বাজার দরেও দাপট দেখাতে পারেছ না। কিন্তু আইপিএলের দরে কোনও কমতি নেই। ১৩.৫ শতাংশ উন্নতি হয়েছে আইপিএলের মোট ব্র্যান্ড ভ্যালুতে। ২০১৮ সালে যেখানে আইপিলের বাজার দর ছিল ৪১,৮০০ কোটি টাকা, সেখানে ২০১৯ আইপিএলের পর সেই দর পৌছে গেছে ৪৭,৫০০ কোটিতে। 

আরও পড়ুন - জীবিকা বাঁচানোর লড়াই করছেন বাগানের প্রাক্তন ফুটবলার, মায়া নগরীতে উদয় কোনারের অসম লড়াই