ক্রীড়া ক্ষেত্রে দেশের সর্বোচ্চ সম্মান রাজীব খেল রত্নের জন্য প্রথমে প্রাথমিক তালিকায় ভারতীয় ক্রিকেটার হরভজন সিংয়ের নাম রেখেছিল পঞ্জাব সরকার। কিন্তু পরে সেই নাম সরিয়ে নেওয়ায় তৈরি হয়েছিল নানা বিতর্ক। কী কারণে প্রথম হরভজন সিংয়ের নাম রেখেও পরে তা সরিয়ে নিল পঞ্জাব সরকার, তা নিয়ে সরব হয়েছিলেন ভাজ্জির অনুগামীরা। অবশেষে সব বিতর্কের অবসান ঘচালেন খোদ হরভজন সিং। বললেন তাক কথাতেই নাম সরিয়ে নিয়েছিল পঞ্জাব সরকার।

আরও পড়ুনঃ১৬ বছরের শূন্যতা কাটিয়ে ইপিএলে প্রত্যাবর্তন লিডস ইউনাইটেড

শনিবার এই বিষয়ে একটি ট্যুইট করেন হরভজন সিং। তাতে লেখেন, প্রিয় বন্ধুরা,'পঞ্জাব সরকার খেলরত্নের মনোনয়ন তালিকা থেকে আমার নাম কেন বাদ দিল জানতে চেয়ে আমার কাছে অজস্র কল আসছে। সত্যিটা হল খেলরত্নের জন্য কোনও অ্যাথলিটের শেষ তিন বছরের ধারাবাহিক ভালো পারফরম্যান্স প্রাথমিক শর্ত। কিন্তু আমি সেই আওতার মধ্যে পড়ি না। বন্ধুদের কাছে অনুরোধ বিষয়টি নিয়ে দয়া করে বিতর্ক তৈরি করবেন না।' সংবাদ মাধ্যমে তিনি জানিয়েছেন, রাজীব খেলরত্নের জন্য শেষ তিন বছরের পারফরম্যান্স একটি প্রাথমিক শর্ত। অথচ ২০১৬ পর থেকে জাতীয় দলের হয়ে মাঠেই নামেননি তিনি। সেই কারণে নিজেই নিজেকে এই পুরস্কারের লড়াই থেকে সরিয়ে নিয়েছি।

আরও পড়ুনঃএকদিনের দল থেকে বাদ পড়ে নিজের যোগ্যতা নিয়ে সংশয়ে ছিলেন দ্রাবিড়

আরও পড়ুনঃমহম্মদ শামির মেয়ে যেন ছোট হাসিন,সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল মা ও মেয়ের নাচ

রাজীব খেলরত্ন নিয়ে জল্পনা বন্ধ করতে তার  অনুগামীদের কাছেও অনুরোধ করেছেন টার্বুনেটর। বর্তমানে আইপিএল যে হরভজন সিংয়ের পাখির চোখ তা আগেই জানিয়েছেন হরভজন। তার সমর্থকদের আশ্বস্ত করে জানিয়েছেন ভজ্জি। আইপিএলে ভাল পরাফরমেন্স করার জন্য দিন রাত পরিশ্রম করছেন টেস্ট ক্রিকেটে ভারতের হয়ে একমাত্র হ্যাটট্রিক শিকারী। হরভজন নিজে হস্তক্ষেপ করায় এবার রাজীব খেলরত্ন থেকে হরভজনের নাম বাদ দেওয়ার বিতর্ক ধামা চাপা পড়বে বলেই মনে করচেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা।