২০১৭ সালের পর আবার পুণের মাঠে হচ্ছে টেস্ট ম্যাচ। ২০১৭ সালে যে উইকেটে খেলা হয়েছিল তাতে ভারত-অস্ট্রেলিয়া টিকেছিল মাত্র তিন দিন। ৩১টি উইকেট নিয়েছিলেন স্পিনাররা। টেস্টের পর আইসিসি’ও পুণের উইকেটকে খারাপ বলে বর্ণনা করেছিল। ২০১৭ সালের সেই ম্যাচের পর আর টেস্ট ম্যাচ হয়নি পুণেতে। ২০১৯ সালে আবার টেস্ট ম্যাচ পেল পুণে। তবে অন্য সব দিকে সরিয়ে রেখে আলোচনার কেন্দ্রে পুণের ২২ গজ। আবার ২০১৭ ফিরে আসবে না তো? এই প্রশ্নই চলছে সব মহলে। 

আরও পড়ুন - হাসপাতাল থেকে ছুটি, বেবি স্টেপে ফিরে আসার লড়াই শুরু হার্দিক পান্ডিয়ার

ম্যাচের আগের দিন সাংবাদিক সম্মেলনে এসে এই প্রশ্নের মুখে পরতে হল ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলিকেও। প্রশ্নের বাউন্সার যদিও নিজের মেজাজেই সামলালেন বিরাট। উইকেট নিয়ে কি চিন্তা আছে? প্রশ্ন শুনে বিরাট বলছেন তাঁর দল মাঠে নামবে জেতার জন্য। পরিস্থিতি যেমনই হোক, সেই পরিস্থিতে দুটি দলকেই খেলতে হবে। তাই অজুহাত না খুঁজে তাঁর দল উত্তর খুঁজতে বেশি পছন্দ করে। আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই বলেছেন ভারত অধিনায়ক। মঙ্গলবারও ভারতীয় দলের বোলিং কোচ ভরত অরুণ বলেছিলেন তাঁরা টেস্টের এক নম্বর দল, নিজেদের পছন্দ মত উইকেট তাঁরা চেয়ে নেন না, বরং যে উইকেট পাওয়া যায় সেই উইকেটেই নিজেদের মেলে ধরার চেষ্টা করেন। 

আরও পড়ুন - ধোনির অবসর নিয়ে এবার মুখ খুললেন ভারতীয় দলের কোচ রবি শাস্ত্রী

বিরাট আত্মবিশ্বাসটা অবশ্য স্বাভাবিক। কারণ সাম্প্রতিক অতীতে টেস্টে ভারতীয় দলের সাফল্যের পেছনে বোলারদের বড় অবদান। তা সে স্পিনিং উইকেট হোক বা বাউন্সি উইকেট। শেষ টেস্টও সামি স্পিন সহায়ক উইকেটে পাঁচ উইকেট নিয়ে দলের জয়ের রাস্তাটা পরিস্কার করে দিয়েছেন। তবে বিরাট একটা বিষয় মেনে নিচ্ছেন, খুব বেশি টার্নিং উইকেটও তাঁদের পছন্দ নয়। কারণ একাধিকবার প্রতিপক্ষের স্পিনার ভারতকে বিপদে ফেলেছে। তাই উইকেট নিয়ে বেশি কথা নয়, পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে জয়ের জন্য ঝাঁপানোটাই কোহলির দলের লক্ষ্য। 

আরও পড়ুন - বিশ্ব বক্সিং চ্যাম্পিনশিপের কোয়াটার ফাইনালে ভারতের জমুনা ও লোভলিনা