পোষাকি নাম তার 'হিটম্যান'। নাম শুনেই কারও বুঝতে বাকি থাকে না যে, ব্যাট হাতে বোলারদের রাতের ঘুম কেড়ে নিতে ভালবাসেন রোহিত শর্মা। পুরোপুরি ছন্দে থাকলে ২২ গজে তার দিকে ধেয়ে আসতে ভয় পান বিশ্বের তাবড় তাবড় বোলার। বর্তমানে সাদা বলের ক্রিকেট অর্থাৎ সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অন্যতম বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান রোহিত। ৫০ ওভারের একটি নয়, দুটি নয় তিন-তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি তার নামে। রোহিতের করা ২৬৭ একদিনের ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বোচ্চ স্কোর। এছাড়াও আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরির মালিকও তিনি। কিন্তু এহেন রোহিত শর্মাও নাকি ভয় পান বিশ্বের চার জন বোলারকে। সেই নামের তালিকা দিয়েছেন স্বয়ং হিটম্যানই।

আরও পড়ুনঃবর্তমান পরিস্থিতি কঠিন উইকেটে টেস্ট ম্যাচ খেলার মত,করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

যেই চার বোলারের তালিকা দিয়েছেন রোহিত শর্মা, তারা সকলেই ডানহাতি।  প্রত্যেকে দুর্দান্ত আউট-সুইং করাতে পারেন। রোহিত জানিয়েছেন, ২০০৭ সালে যখন তিনি প্রথম অস্ট্রেলিয়া সফরে যান তখন ব্রেট লি’র ভয়ে রাতে ঘুম হতো না তাঁর। রোহিত বলছেন,‘ব্রেট লি’র তখন সেরা সময়। আমি ওঁর ভিডিওগুলো দেখতাম। নিয়মিত ১৫০-১৫৫ কিলমিটার বেগে বল করত। আমার মতো তরুণ ব্যাটসম্যানের পক্ষে সেটা খেলা দুস্বপ্নের মতোই ছিল।’ রোহিতের তালিকায় দ্বিতীয় বোলার দক্ষিণ আফ্রিকার ডেল স্টেইন। তিনি বলছেন, ‘গতি আর সুইংয়ের সেই মিশেল সামলানো অসম্ভব হয়ে যেত।’বাস্তবিকই এই দুই বোলার অত্যন্ত সমস্যায় ফেলেছেন ‘হিটম্যান’কে। স্টেইন দলে থাকাকালিন রোহিত দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৩টে টেস্ট ১৪ টা ওয়ানডে এবং ৩টে টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। এই ম্যাচগুলিতে রোহিতের গড় ছিল তিরিশেরও কম। এদিকে ব্রেট লি দলে থাকাকালীন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে রোহিত খেলেছেন ৭টা ওয়ানডে এবং ৫টা টি-টোয়েন্টি। এতে তাঁর সংগ্রহ যথাক্রমে ১৩৮ এবং ১৬ রান। 

আরও পড়ুনঃআইপিএল কেরিয়ারের শেষ ম্যাচটা কোন দলের হয়ে খেলতে চান,জানিয়ে দিলেন রাসেল

আরও পড়ুনঃকরোনার জেরে স্থগিত হয়ে গেল সায়নীর মলোকাই চ্যানেল জয়, মন খারাপ বাংলার 'সাগরিকার'

তালিকায় প্রথম দুজনই অবসর নিয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে। বাকি এই প্রজন্মের দুই বোলারও তাঁকে ভীষণ সমস্যায় ফেলেন। একজন ডেইল স্টেইনের দলেরই কাগিসো রাবাডা। রাবাডার গতি, সুইং ও বোলিং শৃঙ্খলা খুব নিপুন বলে জানিয়েছেন রোহিত। লাগাতার একই গতিতে বল করারা পাশাপাশি গতির পরিবর্তনের ব্যবহারও খুব ভাল করেন রাবাডা। আররোহিতের ভীতির তালিকায় চতুর্থ বোলার হলেন অস্ট্রেলিয়ার তারকা পেসার জস হ্যাজেলউড। হ্যাজেলউডের লাইন, লেন্থে নিয়ন্ত্রণ ও বিপদজনক ছোট ছোট সুইং বারবার সমস্যায় ফেলেছে রোহিতকে। টেস্ট ক্রিকেটে হ্যাজেলউডকে একেবারেই খেলতে চান না বলেও জানিয়েছেন রোহিত।