টস জিতে ভারত অধিনায়কর বিরাট কোহলি যখন প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিলেন তখন অনেকেই চমকে গিয়েছিলেন। কোহলি পরিচিত রান তাড়া করার মাস্টার হিসেবে। তাঁর দলও রান তাড়া করতেই পছন্দ করে। তাহলে প্রথমে ব্যাটিং কেন? বিরাট বললেন, দলকে স্বাচ্ছন্দের বাইরে এনে দখেতে চান কী হয়। আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হতে চলা টি২০ বিশ্বকাপ কে মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত সাহসী। কিন্তু লড়াই শেষে বিরাট যে প্রশ্নর সামনে, সেই প্রশ্ন যে অনেক পুরনো। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ভারতীয় টপ অর্ডার রান না পেলে ভারতীয় ব্যাটিং তাসের ঘরের মত ভেঙে পরে। এদিনও সেটাই সত্যি হল। বিটার-রোহিত-ধাওয়ান ফিরে যেতেই ছন্দহীন ভারতীয় ব্যাটিং। 

আরও পড়ুন - জাতীয় মোটর ব়্যালিতে দুর্ঘটনা, প্রাণ গেল তিনজনের, মামলা দায়ের ভারতীয় চালকের বিরুদ্ধে

এদিন ঋষভ পন্থ সুযোগ পেয়েছিলেন নিজেকে প্রমাণ করার। হাতে অনেকটা সময় ছিল, শুরুটা মন্দ করেননি। কিন্তু তারপর যে কে সেই। অফ স্টাম্পের বলে ছয় মারতে গিয়ে প্যাভেলিয়ানের রাস্তা ধরলেন। বাকিরাও জমতে পারেলন না। তাই ২০ ওভারে ১৩৪ রান করতে পারল ভারত। জবাব দিতে নেমে বেঙ্গালুরুতে যেন মোহালির বিরাট হয়ে উঠলেন দক্ষিণ অফ্রিকার অধিনায়ক। একদিকে দাঁড়িয়ে থেকে যেমন রান তুললেন তেমনই জয়ের ভীতটাও গড়ে দিলেন। মাত্র এক উইকেট হারিয়ে ১৭ ওভারের জয়ের লক্ষ্য পৌছে গেল প্রোটিয়াসরা। একই সঙ্গে দুটি টি২০ ম্যাচেই রান করে সিরিজ সেরা পুরস্কারটাও নিয়ে গেলেন। বিশ্বকাপের পর প্রথম হারের মুখ দেখল ভারত। কুইন্টন ডি’ককের সঙ্গে টি২০ ট্রফি ভাগ করে নিলেন কোহলি। 

আরও পড়ুন- আরও বাড়ল ছুটির মেয়াদ, নভেম্বর পর্যন্ত ক্রিকেটে নেই ধোনি, এমনই খবর ক্রিকেট মহলে

ভারতীয় দল একটা বিষয় যদিও পরিস্কার করে দিয়েছে, আগামী টি২০ বিশ্বকাপকে মাথায় রেখে একাধিক পরীক্ষা চলবে। দলকে বারবার কঠিন পথে ঠেলে দেবেন কোহলি-শাস্ত্রীরা। যে সব তরুণরা এই চ্যালেঞ্জ নিয়ে পারফর্ম করতে পারবেন তাদেরই দেখা যাবে বিশ্বকাপের দলে। ঘরোয়া ক্রিকেটে ভাল খেললেই যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভাল খেলা যাবে, সেটা একেবারেই নয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের কঠিন স্বাদটাই দলের জুনিয়রদের দিতে চাইছেন কোহলি। 


আরও পড়ুন - মাঠে আসতে দিতে হবে মহিলাদের, ইরানকে স্পষ্ট বার্তা ফিফার