সামনে থেকে না হলেও পেছন থেকে এবারের ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রো বোর্ডের নির্বাচকে নিয়ন্ত্রন করতে চেয়েছিলেন প্রক্তন বোর্ড সভাপতি এন শ্রীনিবাসন। কিন্তু সেই পরিকল্পনায় বড় ধাক্কা খেতে হল শ্রীনিকে। সংবাদ সংস্থা এএনআই সুত্রের খবর হরিয়ান, মহারাষ্ট্র ও তামিলনাড়ুকে আগানমী বার্ষিক সাধারণ সভায় ভোট দেওয়ার অধিকার দিচ্ছে না সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত প্রশাসক গোষ্ঠি। লোধা কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী এই তিন রাজ্য সংস্থা তাদের গঠনতন্ত্র তৈরি করেনি বলে অভিযোগ। আর তাই ভোট দেওয়ার অধিকারও হারাচ্ছে শ্রীনিবাসনের তামিলনাড়ু সহ হরিয়ানা ও মহারাষ্ট্র। 

আরও পড়ুন - ময়ঙ্কের সেঞ্চুরি, বিরাট ও পূজারার হাফ সেঞ্চুরিতে বড় রানের পথে টিম ইন্ডিয়া

২৩ তারিখ বোর্ডের বার্ষিক সাধারাণ সভা। সেই সভার আগে সমস্ত রাজ্য সংস্থাকে লোধা কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী নিজেদের গঠনতন্ত্র সাজানোর নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটরা। কিন্তু সেই নিয়ম মানা হচ্ছে না। অনেক ক্রিকেট সংস্থাই নির্বাচনে একাধিক অসঙ্গতি রেখেছে। লোধা কমিশিনের সব সুপারিশ মেনে নির্বাচন করা হয়নি। তাহলে তাদের কেন ভোট দেওয়ার অধিকার দেওয়া হচ্ছে? এমনই প্রশ্ন তুলছেন তিন সংস্থার প্রতিনিধিরা। 

আরও পড়ুন - পাকিস্তানে এসে ক্রিকেট খেলুন, বিরাটকে কাতর আর্জি পাকিস্তানি যুবকের

চলতি মাসের ২৩ তারিখ হওয়ার কথা বোর্ডের বার্ষিক সাধারণ সভা ও নির্বাচন। কিন্তু ভোটের অধীকার কেরে নেওয়ায় এই তিন সংস্থাও যে চুপ করে বসে থাকার পাত্র নয় সেটা পরিস্কার। তারা আদালতে চলে গেলে নির্বাচন পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাই প্রবল। শ্রীনিবাসন নাকি ইতিমধ্যেই যুক্তি তৈরি করেছেন, তাঁর মতে ভোটের অধীকার কেড়ে নেওয়ার ক্ষমতা নেই সিওএ’র। প্রশাসকদের প্রধান বিনোদ রাই এখন দেশের বাইরে। দেখে ফিরে তিনি কি বলেন এখন সেদিকেই তাকিয়ে দেশের ক্রিকেট মহল। 

আরও পড়ুন - বিসর্জনের ঢাকের তালে নেচে উঠলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়