আইপিএলে স্পট ফিক্সিং কাণ্ডে জড়িত থাকার অপরাধে গ্রেফতার হয়েছিলেন শ্রীসন্থ, চান্ডিলারা। বর্তমানে আইপিএলে গড়াপেটার ছাড়া খুঁজে না পাওয়া গেলেও আইপিএলের ধাঁচে তৈরি হওয়া বিভিন্ন রাজ্য সংস্থার টি-২০ ক্রিকেট লিগে গড়াপেটা চলছেই। আর এই ধাক্কায় এবার গ্রেফতার হলেন দুই ভারতীয় ঘরোয়া ক্রিকেটার। বেঙ্গালুরুর সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ গ্রেফতার করল সিএম গৌতম ও আবরার কাজিকে। দুই ক্রিকেটারের বিরুদ্ধেই অভিযোগ কর্নাটক প্রিমিয়ার লিগের ফাইনালে ২০ লক্ষ টাকা নিয়ে স্লো ব্যাটিং করার অভিযোগ দুই ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে।  কেপিএলে এই দুজনই খেলতেন বেলারি টাস্কার্সের হয়ে। তবে এখানেই শেষ নয় আরও একাধিক ক্রিকেটার গ্রেফতার হতে পারে বলেই খবর বেঙ্গালুরু সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ সুত্রে। 

আরও পড়ুন - রাজকোটে ব্যাট ছাড়াই সেঞ্চুরি করবেন রোহিত, তাই বলছে পরিসংখ্যান

সিএম গৌতম জাতীয় দলের খেয়ে খেলার সুযোগ না পেলেও ভারতীয় ক্রিকেটের খুবই পরিচিত মুখ। ভারতীয় এ দলের হয়েও খেলেছেন। বিরাটের বেঙ্গালুরু রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স, দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের মত দলের হয়েও মাঠে নেমেছেন গৌতম। একাই সঙ্গে কর্নাটক রাজ্য দলের হয়ে সব ধরনের ক্রিকেট খলেছে। শুক্রবার থেকে শুরু হতে চলা সৈয়দ মুস্তাক আলি টি-২০ ট্রফিতেও দুজনই ছিলেন রাজ্য দলের সদস্য। গৌতম যেখানে কর্নাটকের প্রতিনিধিত্ব করছেন, সেখানে আবরার কাজি খেলছেন মণিপুরের হয়ে।  

আরও পড়ুন - আইপিএলের দল বদলে রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে নিয়ে প্রবল জল্পনা

মঙ্গলবার আরও এক ক্রিকেটারকে গ্রেফতার করেছিল কর্নাটকের সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ। নিশান্থ সিং শেখাওয়াত নেমের সেই ক্রিকেটারের কাজ ছিল বুকিদের সঙ্গে ক্রিকেটারদের যোগাযোগ করিয়ে দেওয়া। কর্নাটক প্রিমিয়ার লিগের শেষ সংস্করণে একাধিক ম্যাচে ফিক্সিং হয়েছিল বলে খবর। একাধিক ক্রিকেটার যেমন এতে জড়িত তেমনই, দলের মালিক, বিভিন্ন দলের সাপোর্ট স্টাফরাও এই তালিকায় আছেন। বেঙ্গালুরু সেন্ট্রাল ক্রাইম ব্রাঞ্চ গুরুত্ব দিয়ে এই ঘটনার তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। আর তারই অঙ্গ হিসেবে ভারতীয় ক্রিকেটর দুই পরিচিত ক্রিকেটার গ্রেফতার হলেন। তবে এখানেই নাকি শেষ নয়, আরও একাধিক ক্রিকেটার গ্রেফতার হতে পারেন বলে খবর রয়েছে। সব দেখে চিন্তার ভাঁজ ভারতীয় ক্রিকেটার অন্দর মহলে। 

আরও পড়ুন - দিল্লি দূষণের জেরে মাঠেই বমি করেছিলেন সৌম্য সরকার, রিপোর্ট ঘিরে চাঞ্চল্য