দেশ জুড়ে নিজের মাারণ থাবা বিস্তার করেছে মারণ ভাইরাস করোনা।  ইতিমধ্যেই দেশে আক্রান্তের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ২৫ জনের। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। করোনা যুদ্ধে সরকারকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসছেন সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব ও একাধিক ক্লাব এবং সংগঠন। প্রতিটি রাজ্যেও করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেমেছে রাজ্য সরকার। এরাজ্যেও ময়দানে নেমে লড়াই করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর লড়াইয়ে পাশে থাকতে এবার ৩০ লক্ষ টাকা দেওয়ার অঙ্গীকার করল ইষ্টবেঙ্গল ক্লাব। 

আরও পড়ুনঃকরোনা যুদ্ধে ৫১ কোটি টাকা অনুদান বিসিসিআইয়ের

 শুধু ৩০ লক্ষ টাকাই নয়, প্রয়োজনে আরও বড় অর্থ দেওয়ার কথাও ঘোষণা করা হয়েছে লাল-হলুদের তরফে। ক্লাবের এই সিদ্ধান্তের কথ জানিয়ে ইস্টবেঙ্গল কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য দেবব্রত সরকার বলেন, “করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানো প্রয়োজন মনে করছি আমরা। অতীতে ইস্টবেঙ্গল বরাবর বিপন্ন রাজ্যবাসীর পাশে দাঁড়িয়েছে। এবারও তার ব্যতিক্রম হতে আমরা রাজি নই। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ৩০ লাখ টাকা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করব। সেই টাকা আমরা আগামী সপ্তাহে তুলে দিতে চাই। তবে এখানেই আমরা থেমে থাকছি না। চেষ্টা করব আরও বাড়তি টাকা সংগ্রহ করে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে তুলে দিতে। সেই পরিমাণ যাতে ১০ লাখে গিয়ে দাঁড়ায় তার চেষ্টা করা হবে। সবমিলিয়ে ৪০ লাখ টাকা দেওয়াই আমাদের উদ্দেশ্য।”

আরও পড়ুনঃকরোনা যুদ্ধে ৫২ লক্ষ টাকা অনুদান করলেন সুরেশ রায়না

আরও পড়ুনঃকরোনা মোকাবিলায় এক লক্ষ টাকা দান করলেন ক্রিকেটার রিচা ঘোষ

এছাড়াও ক্লাবের পক্ষ থেকে আরও কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জানানা হয়েছে, ক্লাবের তরফ থেকে করা অনুদানের বাইরেও ক্লাব সদস্যরা জনসাধারণের কাছে যাবেন ত্রাণ সংগ্রহের জন্য। সেই ত্রাণ তুলে দেওয়া হবে দরিদ্র মানুষের হাত। শুধু ইষ্টবেঙ্গল নয়, শনিবার মোহানবাগান ক্লাবের পক্ষ থেকেও মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ২০ লক্ষ টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়ছে। ক্লাবের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে সেই খবর। মোহনবাগানের ফেসবুক পেজে লেখা হয়, “ফুটবল মানে একতা। আবার ফুটবলের অর্থ মানবতাও। এই সঙ্কটজনক পরিস্থিতিতে আমরা সবাই মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই করছি। জাতীয় ক্লাব হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহ্বানে সাড়া দিয়ে রাজ্যের বিপর্যয় মোকাবিলা তহবিলে ২০ লক্ষ টাকা অনুদান দেওয়া হল।’’
দেশ তথা রাজ্যের বিপদের সময় ময়দানের দুই ক্লাবের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়াকে সাধুবাদ জানিয়েছে ফুটবল প্রেমীরা। এই পরিস্থিতি মোকাবিলায় হাতে হাত মিলিয়ে লড়াইয়ের ডাকও দিয়েছেন ময়দানের দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাবের সভ্য সমর্থকরা।