সৌমিক দে দলের দায়িত্ব নিয়েছেন মাত্র কিছুদিন। রবিবারই তিনি প্রথমবারের জন্য ডাগ আউটে বসলেন। কিন্তু প্রথম দিনেই মোহনবাগানকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছিল সৌমিক। নিজে ছিলেন ডিফেন্ডার। এদিন কিভু ভিকুনার বাগানের বিরুদ্ধে সেই ডিফেন্সেই বাজিমাত করার খুব কাছেই চলে এসেছিলেন রেনবো কোচ প্রাক্তন লাল হলুদ অধিনায়ক। খেলার শুরু থেকে একের পর এক আক্রমণ করে মোহনবাগান। কিন্ত নিউব্যরাকপুরের দলের রক্ষণে বারবার ধাক্কা খায় সবুজ মেরুনের আক্রমণ। ম্যাচের প্রথমার্ধ ছিল গোল শুন্য। এদিনই সবুজ মেরুন জার্সি গায়ে অভিষেক হল সাইরাসের।

আরও পড়ুন - লা-লিগায় দাপুটে জয় বার্সেলোনার, প্রিমিয়ার লিগে অবাক হার ম্যানসিটির

দ্বিতীয়ার্ধে তরুণ ফুটবলার শুভ ঘোষকে মাঠে নিয়ে আসেন বাগান কোচ। ৬৫ মিনিটে ম্যাচের একমাত্র গোলটি পায় মোহনবাগান। বেইতিরা কর্ণারে হেডে গোল শুভ ঘোষের। কিছুটা বলেও স্বস্তি ফেরে বাগান শিবির। কিন্তু গোল খেয়ে থেমে থাকেনি রেনবো এফসি। বরং পাল্ট আক্রমণ চালায় তারা। বারকয়েক বাগান গোলকিপারকে পরীক্ষার মুখেও পরতে হয়। কিন্ত ৯০ মিনিটের লড়াই শেষে তিন পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছাড়েন বাগান ফুটবলাররা। কল্যাণীতে রেনবোকে হারিয়ে আট ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট মোহনবাগানের। শীর্ষে থাকা পিয়ারলেসের বিরুদ্ধে পয়েন্ট সমান হলেও গোল পার্থক্যে দ্বিতীয় স্থানে কিভু ভিকুনার দল। এবার মহমেডান ম্যাচের প্রস্তুতি শুরু করতে হবে সবুজ মেরুন কোচকে। 

আরও পড়ুন - নেইমারের গোলেই জয় পিএসজির, প্রিমিয়ার লিগে জয় চেলসি, ম্যানইউ ও টটেনহ্যামের

রবিবার মোহনবাগান রেনবোকে হারিয়ে লিগের দ্বিতীয় স্থান উঠে এলেও সোমবার তাদের টপকে যাওয়ার সুযোগ ইস্টবেঙ্গলের সামনে। কল্যাণীর মাঠে শঙ্করলালের ভবানীপুরের মুখোমুখি হতে চলেছে ইস্টবেঙ্গল। আগের ম্যাচে দুরন্ত ফুটবল খেলা জুয়ান মেরা লাল হলুদ জনতার আকর্ষণের কেন্দ্রে। ৭ ম্যাচে ১৩ পয়েন্টে আছে আলেহান্দ্রো গার্সিয়ার দল। সোমবার জিততে পারলে লিগ শীর্ষে উঠে আসার সুযোর রয়েছে তাদের সামনে। পাশাপাশি এই ম্যাচ হবে কল্যাণী স্টেডিয়ামে। তাই তুলনামূল ভাল মাঠে আলেহান্দ্রোর ছেলেরা কতটা ভাল ফুটবল উপহার দিতে পারেন সেটাও দেখার। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে যদিও খোস মেজাজেই রয়েছে লাল হলুদ শিবির। কারণ পিয়ারলেস ম্যাচে গন্ডোগলের জন্য শাস্তি পাওয়া দলের গোলকিপার কোচ ও ম্যানেজারের ওপর থেকে নির্বাসনের সাজা ফিরিয়ে নিয়েছে আইএফএ। শুধু জরিমান দিতে হবে তাদের। পাশাপাশি ডিক ও মেহতাবের জরিমার অঙ্কও কমে গেছে অনেকটাই।

আরও পড়ুন - ‘তিন বছর পর সেদিন মিষ্টি খেয়েছিলাম’ বলছেন ভারত অধিনায়ক সুনীল