করোনা আবহেই বিশ্ব জুড়ে ফিরছে ফুটবল । গত মাসের ১৬ তারিখ থেকে জার্মানি শুরু হয়েছে বুন্দেশলিগা। জুন মাসের ১১ তারিখ ফিরছে লা লিগা, ১৭ তারিখ ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ও ২০ তারিখ ফিরছে ইতালির সিরি এ লিগ। সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে সব  খেলাই হবে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে। বুন্দেশলিগা চলছেও দর্শকহীনভাবেই। লা লিগা ও ইপিএল কর্তৃপক্ষও কোনওরকম ঝুঁকি নিতে নারাজ। সব ম্যাচই হবে ক্লোজড ডোর। কিন্তু ভিন্ন পথে হাঁটার চেষ্টা করছে ইতালির ফুটবল ফেডারেশন। সিরি এ শুরু হলে মাঠে দেখা যেতে পারে দর্শক। তবে তা সংখ্যা কম। 

আরও পড়ুনঃবিস্ফোরক ডোড্ডা গণেশ,সতীর্থদের বিরুদ্ধে বর্ণবিদ্বেষের অভিযোগ আনলেন প্রাক্তন ভারতীয় পেসার

আমরা সকলেই জানি মাঠে দর্শকরাই হচ্ছে প্লেয়ারদের অনুপ্রেরণা। তাদের জন্যই খেলা। কিন্তু বর্তমানে স্বাস্থ্যবিধির কথা ভেবে খেলতে হচ্ছে দর্শকহীন মাঠেই। ইতিমধ্যেই মেসি,মূলার সহ একাধিক প্লেয়াররা বিষয়টি অদ্ভূত বললেও, স্বাস্থ্যের কথা ভেবে মেনে নিয়েছে। কিন্তু ইতালির ফুটবল ফেডারেশন ভাবছে একটু অন্যরকমভাবে। তাদের মতে,সমর্থকদের ছাড়া খেলতে নামা খেলোয়াড়দের কাছে কখনই উৎসাহজনক নয়। সেকথা মাথায় রেখেই ইতালিয়ান ফুটবল সংস্থা সরকারের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে সব রকম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা অবলম্বন করে অল্প সংখ্যক দর্শকদের মাঠে ঢোকার অনুমতি দেওয়ায় বিষয়ে। অর্থাৎ সবকিঠু ঠিকঠাক থাকলে মাঠে বসেই রোনাল্ডোদের খেলা দেখতে পাবেন দর্শকরা।

আরও পড়ুনঃরাঁচির ফার্ম হাউসে মেয়েকে নিয়ে গোতির ঝড় তুললেন ধোনি, ভাইরাল ভিডিও

আরও পড়ুনঃকরোনায় আক্রান্ত বার্সেলোনার ৫ ফুটবলার সহ ৭ জন,দাবি স্পেনের এক রেডিও চ্যানেলের

আগামী ২০ জুন থেকে শুরু হবে সিরি-এ'র বাকি ম্যাচগুলি। তার আগে ইতালিয়ান ফুটবল সংস্থা ৪০ পাতার নির্দেশিকা জারি করে ম্যাচ আয়োজনের নতুন নিয়মের কথা জানিয়েছে। বর্তমান নিয়মে ম্যাচের সময় দুই দলের খেলোয়াড়, সাপোর্ট স্টাফ, কর্মকর্তা ও সাংবাদিক মিলিয়ে ৩০০ জনের বেশি মানুষ মাঠে থাকতে পারবেন না। তবে সংবাদমাধ্যমে খবর, পরবর্তী বৈঠকেই ইতালিয়ান ফুটবল সংস্থা দর্শকদের মাঠে ঢোকার অনুমতি দেওয়ার বিষয়ে আলোচনা করবে।ফেডারেশন সভাপতি গ্যাব্রিয়েল গ্রাবিন্দা এপ্রসঙ্গে বলেন, 'দর্শক সমাগমের বিষয়টা আমি মন থেকে চাইছি। এটা মেনে নেওয়া কঠিন যে, ৬০ হাজার মানুষকে একসঙ্গে বসে খেলা দেখার ব্যবস্থা করতে পারে যে স্টেডিয়াম, সেখানে সতর্ক হয়ে অল্প কিছু মানুষকেও খেলা দেখানোর ব্যবস্থা করা যাবে না?' কিন্তু ইতালির  ফুটবল ফেডারেশনের ভাবনা প্রকাশ্যে আসার পরই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, যে দেশে করোনা মহামারী চুড়ান্ত রূপ ধারণ করেছিল। মৃত্যু মিছিল শুরু হয়েছিল। সেই দেশে ফুটবল প্রতিযোগিতায় মাঠে দর্শক প্রবেশের অনুমতি দিলে তা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যাবে না?