করোনা ভাইরাস মহামারী  নিয়ে আতঙ্কে রয়েছে  বিশ্ববাসী। এরইমধ্যে বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে এক প্রতিবাদও। কারণ অবশ্যই পুলিসি হেফাজতে যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের হত্যা।  প্রতারণায় অভিযোগে গ্রেফতারের পর গত সোমবার রাতে মিনিয়াপলিসের এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার জর্জ ফ্লয়েডকে তার গলার কাছে হাঁটু গেড়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। প্রায়  ৯ মিনিট তার গলা হাঁটু দিয়ে চেপে ধরে রাখেন পুলিশ কর্মকর্তা ডেরেক চোবিন। তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগও আনা হয়েছে। জর্জকে শ্বাসরোধ করে মৃত্যুর প্রতিবাদ এবং ন্যায়বিচারের দাবিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে ব্যাপক মাত্রায় বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। শুধু মার্কিন মুলুকেই নয়, প্রতিবাদের ঝড় আছড়ে পড়েছে ব্রিটেনেও৷  প্রতিবাদে সামিল হয়েছে লিভারপুল দলও।

 

 

আরও পড়ুনঃআধুনিক ফুটবলে মেসিকেই সেরার শিরোপা দিলেন রোনাল্ডো

ইপিএল শুরু দিনক্ষণ ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই অনুশীলনে অধিক জোর দিয়েছে সব ক্লাবগুলি। অনুশীলনে যোগ দিয়ে সমস্ত লিভাপুল প্লেয়াররা জর্জকে হত্যার প্রতিবাদে যারা রাস্তায় নেমেছে তাদের সমর্থন করেছেন। প্লেয়াররা ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার আন্দোলনে যোগ দিতে মাঠের মাঝে হাঁটু গেড়ে বসে প্রতিবাদ জানান ও জর্জের আত্মার শান্তি কামনা করে।ঘটনার নিন্দাও করেছেন লিভারপুল প্লেয়াররা। অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা। ছবিটি পোস্ট করে লেখা হয়েছে, 'একতাই শক্তি। কৃষ্ণাঙ্গদের জীবনেরও দাম আছে।'এই ক্যাপশন দিয়ে ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা হয়। লিভাপুলের এই প্রতিবাদের একটি ভিডিও ক্লাবের তরফ থেকে শেয়ার করা হয়েছে।

 

 

আরও পড়ুনঃকঠিন সময় সচিনের 'পেপটক'ই ভরসা সন্দেশ ঝিঙ্গানের

আরও পড়ুনঃকোহলিকে সম্মান করেন কিন্তু ভয় পান না,ভারতের বিরুদ্ধে খেলার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন পাক পেসার

ফ্লয়েড হত্যার ধীর ধীরে ছড়িয়ে পড়ছে গোটা ফুবল বিশ্বে। বুন্দেশলিগার প্লেয়ার জ্যাডন স্যাঞ্চো থেকে আশরাফ হাকিমি, রবিবার ‘জাস্টিস ফর জর্জ ফ্লয়েড’ দাবিতে সোচ্চার হলেন বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের দুই গোলস্কোরার। ‘জাস্টিস ফর জর্জ ফ্লয়েড’ লেখা টি-শার্ট পরেই এদিন মাঠে নামেন ইংরেজ স্ট্রাইকার স্যাঞ্চো। স্যাঞ্চো ছাড়াও এদিন গোলের পর ফ্লয়েডের ন্যায়বিচারের দাবি করলেন স্প্যানিশজাত মরক্কোন ফুটবলার আশরাফ হাকিমি। রবিবার অন্য আরেকটি ম্যাচে বরুসিয়া মনচেনগ্লাডবাচের মার্কাস থুরাম গোলের পর হাঁটু গেড়ে বসে শ্রদ্ধা জানান ফ্লয়েডকে। শনিবার অন্য একটি ম্যাচে মার্কিন ডিফেন্ডার ওয়েস্টন ম্যাকেনিকেও ‘জাস্টিস ফর জর্জ’ লেখা আর্মব্যান্ড পরে মাঠে দেখা যায়। ফলে যত সময় এগোচ্ছে ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদ ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ছে সর্বত্র।