ঝরনা, পাহাড় ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মোড়া শিলং, স্বপ্ন খরচে চেরাপুঞ্জি-মেঘালয়

First Published 27, Feb 2020, 4:50 PM IST

ভ্রমণ তালিকাতে যদি এবার বড় কোনও ট্রিপের উল্লেখ না থাকে, তবে হাতের কাছে শিলং থেকে ঘুরে আসার পরিকল্পনা করে নেওয়াই যায়। পাহাড়, ঝরনা, জঙ্গলে মোড়া এই অঞ্চল এক কথায় চোখ ধাঁধাঁনো অপরূপ সৌন্দর্যের সম্ভার। এক সময় একে বলা হত প্রাচ্যের স্কটল্যান্ড। এখানে রয়েছে অসংখ্য দর্শনীয় স্থান।

শিলং-এর উচ্চতা সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে ৪-৫ হাজার ফুট। সারাবছরই এখানে পর্যটকদের আনাগোনা।

শিলং-এর উচ্চতা সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে ৪-৫ হাজার ফুট। সারাবছরই এখানে পর্যটকদের আনাগোনা।

এখানে আসলেই প্রথমেই তালিকাতে রাখতে হবে ওয়ার্ড লেক। এই স্থান খুব সুন্দর করে সাজানো রয়েছে। রয়েছে একটি মিউজুয়ামও।

এখানে আসলেই প্রথমেই তালিকাতে রাখতে হবে ওয়ার্ড লেক। এই স্থান খুব সুন্দর করে সাজানো রয়েছে। রয়েছে একটি মিউজুয়ামও।

শিলং শহরেই  রয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দু-দুটি বাড়ি। রয়ছে মদিনা মসজিত, যা এই অঞ্চলের সব থেকে বড়।

শিলং শহরেই রয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দু-দুটি বাড়ি। রয়ছে মদিনা মসজিত, যা এই অঞ্চলের সব থেকে বড়।

এখানে রয়েছে এলিফ্যান্ট ঝরনা। যা তিনটি স্তরে প্রবাহিত হচ্ছে। দূর থেকে দেখলে হাতির সুঁরের মত লাগে।

এখানে রয়েছে এলিফ্যান্ট ঝরনা। যা তিনটি স্তরে প্রবাহিত হচ্ছে। দূর থেকে দেখলে হাতির সুঁরের মত লাগে।

শিলং থেকে চেরাপুঞ্জি যাওয়ার পথে প্রথমে মকডক সেতু পড়ে। এটি একটি ঝুলন্ত সেতু। কিছুটা দূরেই রয়ছে একটি ইকো পার্ক। ২০০৪ সালে এটি উদ্বোধন করা হয়েছে।

শিলং থেকে চেরাপুঞ্জি যাওয়ার পথে প্রথমে মকডক সেতু পড়ে। এটি একটি ঝুলন্ত সেতু। কিছুটা দূরেই রয়ছে একটি ইকো পার্ক। ২০০৪ সালে এটি উদ্বোধন করা হয়েছে।

এই পথে পড়বে গুহা। যা ১৫০ মিটার দীর্ঘ। রোম্যাঞ্চকর এই ভ্রমণে মিলবে একাধিক চমক। এই গুহার মুখ থেকেই দেখা যায় সেভেন সিস্টার ঝরনা।

এই পথে পড়বে গুহা। যা ১৫০ মিটার দীর্ঘ। রোম্যাঞ্চকর এই ভ্রমণে মিলবে একাধিক চমক। এই গুহার মুখ থেকেই দেখা যায় সেভেন সিস্টার ঝরনা।

শিলং-চেরাপুঞ্জির অন্যতম আকর্ষণ হল নোহকালিকাই ঝরনা। ১১৭০ ফুট উচ্চতার এ ঝরনা ভারতের বৃহত্তম ঝরনাগুলোর অন্যতম।

শিলং-চেরাপুঞ্জির অন্যতম আকর্ষণ হল নোহকালিকাই ঝরনা। ১১৭০ ফুট উচ্চতার এ ঝরনা ভারতের বৃহত্তম ঝরনাগুলোর অন্যতম।

এই স্থান ভ্রমণ করতে জন প্রতি খরচ হতে পারে ২০ হাজার টাকা। গ্রুপে এলে তা খানিকটা কমও হতে পারে। বর্ষার সময় না আসাই শ্রেয়।

এই স্থান ভ্রমণ করতে জন প্রতি খরচ হতে পারে ২০ হাজার টাকা। গ্রুপে এলে তা খানিকটা কমও হতে পারে। বর্ষার সময় না আসাই শ্রেয়।

হোটেল বা রিসর্ট এখানে ভালোই পাওয়া যায়। ১৫০০ টাকা থেকে শুরু। পছন্দ ও গুণমান অনুযায়ী দাম পরিবর্তন হয়।

হোটেল বা রিসর্ট এখানে ভালোই পাওয়া যায়। ১৫০০ টাকা থেকে শুরু। পছন্দ ও গুণমান অনুযায়ী দাম পরিবর্তন হয়।

খাবারের দাম থাকে সাধ্যের মধ্যেই। তবে গাড়ি আগে থেকে ঠিক করে এই স্থানে ভ্রমন করতে আসাই ভালো।

খাবারের দাম থাকে সাধ্যের মধ্যেই। তবে গাড়ি আগে থেকে ঠিক করে এই স্থানে ভ্রমন করতে আসাই ভালো।

loader