কাশ্মীরের গুলমার্গে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর টহলদারি চলছিল। সেই সময়ই হঠাৎ তুষাড়ে পা পিছলে পাহাড়ের ঢাল বেয়ে গড়িয়ে যান ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক জওয়ান। গড়াতে গড়াতে পাকিস্তান সীমান্ত অতিক্রম করে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছেন তিনি। এই খবর পাওয়ার পর থেকে দেরাদুনে তাঁর পরিবারে আশঙ্কায় দিন কাটাচ্ছে। ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা এই মুহূর্তে তুঙ্গে থাকায় তাঁর সঙ্গে খারাপ কিছু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করছেন তাঁরা। সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে সাধ্যমতো অনুসন্ধান চালানো হলেও তাঁর পরিবার চাইছে উইং কমান্ডার অভিনন্দন-এর মতো, ভারত সরকার তাঁকেও দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য পাকিস্তানের উপর চাপ দিক।

আরও পড়ুন - ফের মাথা কেটে নিয়ে গেল পাক সেনা, সামরিক কায়দায় জবাব দেওয়ার হুমকি সেনাপ্রধানের

আরও পড়ুন - প্রতিদিন যৌন নিগ্রহের শিকার ১০৯ জন, মোদীর ভারতে কতটা নিরাপদ শিশুরা

নিখোঁজ ওই জওয়ানের নাম রাজেন্দ্র সিং নেগি। দেরাদুনের অম্বিওয়ালা সেনা কলোনির এই বাসিন্দা ১১ গাড়ওয়াল রাইফেলস-এর হাবিলদার। ২০০২ সালে তিনি বাহিনীতে যোগদান করেছিলেন। গত অক্টোবরেই একমাসের ছুটিতে তিনি দেরাদুনে এসেছিলেন। নভেম্বরে ফিরে যান কাশ্মীরে। গুলমার্গের তুষাড়াবৃত পাহাড়ে টহলদারির কাজে নিযুক্ত করা হয় তাঁকে। গত ৮ জানুয়ারি তাঁর ইউনিট থেকে তাঁর স্ত্রী রাজেশ্বরী-কে ফোন করে তাঁর দুর্ঘটনার সংবাদ দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন - ডিএসপি যখন জঙ্গি, শীর্ষ হিজবুল নেতার সঙ্গে ধৃত খোদ সন্ত্রাসবিরোধী পুলিশকর্তাই

আরও পড়ুন - পাক অধিকৃত কাশ্মীর ফিরিয়ে নেবে ভারতীয় সেনা, পথে রয়েছে একটিমাত্র বাধা

সেনার পক্ষ থেকে তাঁর পরিবারকে জানানো হয়েছে, এলাকাটি পাক সীমান্তের একেবারে লাগোয়া হওয়ায় সেখানে সরাসরি উদ্ধারকাজ চালানো কুটনৈতিক কারণে অসম্ভব। তবে সেনা উপরের মহল থেকে সবরকম চেষ্টা চলছে। তবে তাঁর পরিবার এটা যথেষ্ট বলে মনে করছে না। হাবিলদার রাজেন্দ্রর ভাই কাভান বলেছেন, রাজেন্দ্রর ৩টি সন্তান রয়েছে। তিনি চান উইং কমান্ডার অভিনন্দন-এর মতো তাঁর ভাইকে বাঁচানোর জন্যও কেন্দ্রীয় সরকার পাকিস্তানের উপর চাপ সৃষ্টি করুক।