করোনা রুখতে রাজ্য় জুড়ে চলছে দীর্ঘ লকডাউন। আর তারই মাঝে এবার শুরু হয়েছে পবিত্র রমজান মাস। এই সময়ে শহরের মুসলিম ধর্মালম্বী মানুষদের নিজেদের  যাতে এলাকায় বেরিয়ে ফল বা খাবার কিনতে অসুবিধে না হয়, তা দেখার জন্য বাহিনীকে নির্দেশ দিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা।

আরও পড়ুন, রমজানে যত্রতত্র থুতু না ফেলার অনুরোধ, করোনা রুখতে স্বাস্থ্য়-সম্প্রীতির পরামর্শ ধর্মগুরুদের

 

লালবাজার জানিয়েছে, সংক্রমণ রুখতে লকডাউনের জন্য শহরের একাধিক এলাকাকে ঘিরে রাখা হয়েছে। ওই এলাকাগুলিতে যাতায়াতেও  কড়াকড়ি করা হয়েছে। সেই সব এলাকায় বসবাসকারী মুসলিমদের রমজানের সময়ে ফল বা খাবার কিনতে যাতে কোনও সমস্যা না হয়, তা দেখার জন্য বলা হয়েছে থানাগুলিকে। কলকাতা পুলিশ এলাকার প্রতিটি থানার আধিকারিকদের কাছে পাঠানো বার্তায় কমিশনার বলেছেন, 'এই সময়ে খাবার কিনতে বাজারে যাবেন সাধারণ মানুষ। তাই বাজারগুলিতে পর্যাপ্ত সামাজিক দূরত্ব যাতে বজায় থাকে তা নিশ্চিত করতে হবে। একই সঙ্গে সকলে যাতে মাস্ক পরে বাজারে যান তাও দেখতে হবে।' 

আরও পড়ুন, করোনা উপসর্গ সহ হাসপাতালে ভর্তি সল্টলেকের আরও ১, আতঙ্কে এলাকার সমস্ত গলি বন্ধ করল বাসিন্দারা


অপরদিকে এক পুলিশকর্তা জানিয়েছেন, বাজারে খাবার আনতে গেলেও মানুষ  যাতে অপ্রয়োজনীয় ভীড় সৃষ্টি না করেন, সেই বিষয়টিও দেখার জন্য কমিশনার থানার ওসিদের বলেছেন।  উল্লেখ্য়, সংক্রমণ রুখতে সতর্কতা হিসাবে শহরের বিভিন্ন সংখ্যালঘু এলাকার বাসিন্দাদের রমজানের সময়ে বাড়িতে থেকে প্রার্থনা করার আবেদন জানিয়েছেন মুসলিম ধর্মগুরুরাও।

 

কেন্দ্র বলছে ৫৭১, রাজ্য়ের হিসেবে বাংলায় করোনা অ্যাকটিভ ৪২৩

 মল্লিক বাজারের নিউরো হাসপাতালে করোনা পজিটিভ ২ শীর্ষ কর্তা, সংক্রমণের আশঙ্কায় চূড়ান্ত সতর্কতা

 এবার বেসরকারিতেও করোনা চিকিৎসায় মিলবে বিনামূল্য়ের পরিষেবা, হাসপাতালের খরচও দেবে রাজ্য সরকার