বাঙ্গুর হাসপাতালে রিপোর্টে উঠে এল বড়সড় বিভ্রাট। প্রথম করোনা উপসর্গের রোগীর রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় তাঁকে পাঠানো হল বাড়ি। এরপর সেই রিপোর্টে ভূল তথ্য় আসায় ফের রোগীকে ডেকে পাঠাল হাসপাতাল। রোগী পুনরায় এল হাসপাতালে।  এরপর বাঙ্গুর হাসপাতালেই প্রাণ হারান আমহার্স্ট স্ট্রিটের বাসিন্দা ওই করোনা আক্রান্ত।

আরও পড়ুন, হাওড়ার পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় বড় সিদ্ধান্ত নবান্নের,রাতেই শুরু ধরপাকড়

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রের খবর, গত ২০ এপ্রিল বৃদ্ধের শুকনো কাশি শুরু হয়েছিল, জ্বরও আসে। চিকিৎসকের পরামর্শে ২২ তারিখে  তাঁকে বাঙ্গুর হাসপাতালে  ভর্তি করা হয়। ২৫ তারিখে হাসপাতাল থেকে বাড়িতে ফোনে জানানো হয়, করোনা টেস্টের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। রোগীকে বাড়ি নিয়ে যেতে বলা হয়। পর দিন হাসপাতাল ডিসচার্জ সার্টিফিকেট দেয়। ২৬ তারিখ এম আর বাঙ্গুর হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়।বৃদ্ধকে বাড়ি নিয়ে আসা হয়। তখনও তাঁর কাশি ছিল। কিন্তু বৃদ্ধ পরিজনদের বলেন, তিনি ভাল আছেন। বাড়ির লোকেদের সঙ্গে খোলা মনে মেলামেশাও করেন। ছেলে জানিয়েছেন, '২৭ তারিখে স্বাস্থ্যভবন থেকে ফোনে এক আধিকারিক জানান, তাঁর বাবার রিপোর্ট পজিটিভ'। তাই রিপোর্টে ভুল থাকার কথা বলে ফের অ্যাম্বুল্যান্স করে আবার হাসপাতালে ফিরিয়ে আনা হয়। ফিরিয়ে আনার পরে বাঙ্গুর হাসপাতালেই করোনা আক্রান্ত ওই রোগীর মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন, রাজ্য়ে মৃত বেড়ে ২২, বাংলায় করোনা আক্রান্ত ৫২২


অপরদিকে, মৃতের ছেলে প্রশ্ন তুলেছেন, কিন্তু তা হলে হাসপাতাল ছেড়ে দিল কেন, তাঁর বাবা তো বাড়ির সকলের সঙ্গে একসঙ্গে ছিলেন। এই অবস্থায় তাঁদের কি হবে ,রীতিমত আতঙ্কে ছেলে ও তাঁর পরিবার। অপরদিকে, রিপোর্টে বিভ্রান্তির কথা কার্যত স্বীকার করে নিয়েছে বাঙ্গুর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সূত্রের ঘবর, তবে ওই রোগীর করোনাতেই মৃত্যু হয়েছে কিনা, সেটা খতিয়ে দেখবে অডিট কমিটি। 

 

 

 

চিন থেকে সোজা কলকাতা বিমানবন্দরে, ১০ টন করোনা-চিকিৎসার সামগ্রী নিয়ে শহরে নামল উড়ান

স্ক্রিন ছুঁয়েই প্রিয় জনের অনুভূতি, করোনা রুখতে শহরের হাসপাতালে চালু 'ভারচুয়াল ভিজিটিং আওয়ার্স'

বাবুলের কথা এবার চিকিৎসক সংগঠনের মুখে,করোনায় মৃত্যু স্বাস্থ্য়কর্তার -স্বীকার করুক রাজ্য

এবার বেসরকারিতেও করোনা চিকিৎসায় মিলবে বিনামূল্য়ের পরিষেবা, হাসপাতালের খরচও দেবে রাজ্য সরকার