করোনা রুখতে রাজ্য়ে মাস্ক পরা বাধ্য়তামূলক করেছে সরকার। আর সরকারী নির্দেশ অমান্য করার অপরাধে বিনা মাস্কে বাইরে বেরিয়ে প্রায় প্রচুর সংখ্য়াক মানুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে। লালবাজার সূত্রে জানা গিয়েছে, কলকাতা পুলিশের বিভিন্ন এলাকা থেকে সেই গ্রেফতারের সংখ্য়াটা ১১,৩৬৬ জন। লালবাজার সূত্রে আরও জানা গিয়েছে যে, ইতিমধ্যেই ১২৮০টি গাড়ি আটক করা হয়েছে।
আরও পড়ুন, করোনা আক্রান্ত এবার কলকাতা পুলিশের কর্মী, তিনি এখন এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন


বুধবার সকালে শহরের কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীরা রীতিমত কড়া নজরদারী চালাচ্ছেন। গাড়ি নিয়ে কোথায় যাচ্ছেন, কতজন যাচ্ছেন, সেই সব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন পুলিশকর্মীরা। এরই সঙ্গে চাওয়া হচ্ছে প্রমাণপত্রও। মোটরবাইক আরোহী রাস্তায় আটকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিস। বুধবার সকালে এক ব্যক্তি পুলিশকে জানান, তিনি হাসপাতালে যাচ্ছেন। তিনি সত্যি কথা বলছেন কি না,  তার সত্যতা যাচাই করতে যথাযত প্রমাণপত্র পেলে তবেই ছাড়ছেন পুলিশকর্মীরা। একই সঙ্গে চার চাকার গাড়ি নিয়েও যাঁরা বাইরে বেরিয়েছেন তাঁদেরকেও রাস্তায় দাঁড় করিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। যাঁরা কোনও প্রমাণ পত্র দেখাতে পাচ্ছেন না, তাঁদের গাড়ি আটক করা হচ্ছে।  অবশ্যই সব থেকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে, সাধারণ মানুষ মাস্ক পরে বেড়িয়েছেন কিনা।

আরও পড়ুন, পয়লা বৈশাখে মমতার মিষ্টি উপহার, বুধবার রাজ্যে লকডাউন সফলে আধা সেনার পক্ষে সওয়াল রাজ্যপালের

অপরদিকে, লালবাজার সূত্রে জানা গিয়েছে, কলকাতা পুলিশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ১১৩৬৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৮৮ ধারা অনুযায়ী অর্থাৎ সরকারি নির্দেশ অমান্য করার মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,জামিনযোগ্য এই ধারায় এক মাসের জেলও হতে পারে। লালবাজার সূত্রে আরও জানা গিয়েছে যে, ইতিমধ্যে ১২৮০টি গাড়ি আটক করা হয়েছে।



করোনা আক্রান্ত এবার কলকাতা পুলিশের কর্মী, তিনি এখন এমআর বাঙ্গুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন

করোনার কোপে বন্ধ কলকাতার আস্ত একটি হাসপাতাল, ১০০ ছাড়িয়ে চিকিৎসক-নার্স সহ কোয়ারেন্টাইনে
 
পার্ক সার্কাসের বেসরকারি হাসপাতালে প্রৌঢ়ের মৃত্য়ু, করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই অভিযোগ তুলল পরিবার