ঘূর্ণিঝড় আমফানের জেরে বিধ্বস্ত বাংলা। ইতিমধ্য়েই ঝড় এবং বৃষ্টির জমা জলের জন্য় চাষের ভয়ানক ক্ষতি হয়েছে। অনেক সবজিই মাঠেই গিয়েছে পচে। চাষিরা রক্ষা করার সময়টুকুও পাননি। যার দরুন সবজি বাজারে লেগেছে দামের আগুন। করোনার জেরে সাধারণ মানুষ আগেই কাজ হারিয়েছে। তার উপর নতুন করে এত বড় ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে দাম বেড়ে সবজি কেনা দায় হয়েছে। জেনে নেওয়া যাক বুধবার বাজারে সবজির দাম কেমন যাচ্ছে।

আরও পড়ুন, যাত্রীদের যেতে হবে না দূরে, কলকাতা বিমানবন্দরের পুরনো টার্মিনালই এখন কোয়রান্টিন কেন্দ্র

 খোলা বাজারে প্রতিকিলো জ্যোতি আলুর দাম ২২ টাকা, প্রতি কিলো চন্দ্রমুখী আলুর দাম ২৫ থেকে ২৬ টাকা, প্রতিকিলো পেঁয়াজ ২৫-৩০ টাকা, প্রতিকিলো আদা ১৫০ টাকা , প্রতিকিলো কুমড়োর দাম ৩০ টাকা  এবং ফুলকপি প্রতি পিস ৩০ টাকা। প্রতিকিলো উচ্ছের দাম ৬০ টাকা , পটলের দাম ৫০ থেকে ৬০ টাকা, প্রতিকিলো ঢেঁড়সের দাম ৪০ থেকে ৫০ টাকা, প্রতিকিলো বেগুনের দাম ৬০ টাকা, প্রতিকিলো টমেটোর দাম ৫০ থেকে ৬০ টাকা,  লঙ্কার দাম ১০০ টাকা প্রতিকিলো, গাজর ৬০ টাকা প্রতিকিলো এবং বাঁধাকপি  ৪০ টাকা ।

আরও পড়ুন, বুধবার থেকে সরকারি বাস চালু ৪০টি রুটে, শহরের পথে নামল অটোও

অপরদিকে মাছ বাজারেও দামও বেশ ভালোই। প্রতিকেজি গোটা রুই মাছের দাম ২৫০ টাকা। রুই কাটা মাছের দাম ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা,গোটা কাতলা মাছের দাম ৩০০-৩৫০ টাকা, কাতলা  কাটা হলে দাম  ৩৫০ থেকে ৪০০টাকা, বাটা মাছের দাম ১৮০টাকা, ভেটকি ৩৫০ থেকে ৫০০ টাকা, গলদা চিংড়ি ৮০০ টাকা, বাগদা ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা, মুরগির মাংস ২৫০ টাকা কিলো। প্রতি কিলো পাঁঠার দাম ৯০০ টাকা। করোনার জেরে অনেক জায়গায় বাজার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যার দরুন অনেক ব্য়বসায়ী সবজি তো বটেই এখন ইদানিং কালে দুটো পয়সা রোজগারের আশায় পাড়ায় পাড়ায় চলমান ভ্য়ানগাড়িতে মাংসও বিক্রি করছে। 

 

 রাজ্য়ে ৪০০০ ছাড়াল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত ১৯৩

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসিস্ট্যান্ট

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের