শহর কলকাতার আকাশ ক্রমশই আরও মেঘলা হচ্ছে। শনিবার কলকাতা সহ রাজ্য়ে প্রবল ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় 'আমফান' ঘনীভূত হয়ে গভীর নিম্নচাপে রূপান্তরিত হবে। ৩ মে নাগাদ এই ঘূর্ণিঝড় তীব্র গতি নিয়ে আছড়ে পড়ার পূর্বাভাস। যার প্রভাব পড়বে রাজ্য়েও।  মঙ্গলবার অবধি এর প্রভাব আন্দামান ও বঙ্গোপসাগরে থাকবে। তবে এর জেরে কলকাতায় বড়সড় পারদ পতন। হাওয়া অফিস জানিয়েছে,  শনিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২১.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  যা স্বাভাবিকের থেকে পাঁচ ডিগ্রি কম।

আরও পড়ুন, আরজি করের এমার্জেন্সি বিভাগের ১১ তলার উপর থেকে মরণঝাঁপ, ঘটনাস্থলেই মৃত্যু চিকিৎসকের

 
হাওয়া অফিস জানিয়েছে,  শনিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২১.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।  যা স্বাভাবিকের থেকে পাঁচ ডিগ্রি কম। এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি কম। শহরের বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯৬ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম ৬১ শতাংশ। শনিবার  এই মুহূর্তে শহর কলকাতার তাপমাত্রা ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি ও উত্তর দিনাজপুরে ভারী বৃষ্টি অর্থাৎ ৭০ থেকে ১১০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস। দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতেও ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার গতিবেগে ঝড়ো হাওয়া সঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা। ভারী বৃষ্টি হতে পারে নদিয়া মুর্শিদাবাদ বীরভূম এবং উত্তর ও দক্ষিণ ২৪পরগনায়। 

আরও পড়ুন, মেয়ের দেহ আগলে একা বসে রইলেন অসহায় মা, প্রতিবেশীরা করোনা-আতঙ্কে দিলেন দরজা বন্ধ করে


আলিপুর আবহাওয়া দফতরের মুখ্য় অধিকর্তা জানিয়েছেন,  দক্ষিণ আন্দামান সংলগ্ন সমুদ্রের উপর একটি নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় এটা ঘনীভূত হয়ে গভীর নিম্নচাপে রূপান্তরিত হবে। ঘন্টায় ৭০ কিমি বেগে গভীর নিম্নচাপটি  মায়ানমার ও সংলগ্ন বাংলাদেশ উপকূলে প্রবেশ করবে। আগামী ৫ তারিখ পর্যন্ত এই নিম্নচাপ টি উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হবে ।  বেশি বৃষ্টি হবে আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে। ২ ও ৩ তারিখ মাঝারী বৃষ্টি হবে আন্দামান-নিকোবরের। তারপরে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে। দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর আন্দামান সাগরে অনির্দিষ্টকালের জন্য মৎস্যজীবীদের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। এই নিম্নচাপের জেরেই আগামী ৪৮ ঘণ্টায় পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণবঙ্গ উত্তরবঙ্গ প্রায় সব জায়গাতেই ঝড় বৃষ্টি চলবে।  

 

 

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর

রাজ্য়ে একাধিক করোনা রিপোর্ট 'ফলস' নেগেটিভ, কী বলছেন চিকিৎসকরা

রিপোর্ট 'নেগেটিভ' -পাঠানো হল বাড়ি, ভূল থাকায় ফের ডাক, বাঙ্গুর হাসপাতালে মৃত্যু করোনা আক্রান্তের