রাগ নেই এমন মানুষের সংখ্যাটা নেহাতই হাতে গোনা। ছেলে ,মেয়ে উভয়েরই এই রাগ সমান সমান থাকে। অনেকেই আছেন যারা একটুতেই রেগে যান।সামান্য বিষয় নিয়ে অনেকেই হুটহাট করে রেগে যান। সহজ জিনিসটাকে সহজভাবে গ্রহণ করতে অনেকেই পারেন না। আর তখনই আসে নানান বিপত্তি। রাগের ফলে নিজের অজান্তেই ক্ষয়ক্ষতি করে ফেলছেন। কিন্তু রাগ না কমা অবধি কোনওভাবেই সেটাকে মানতে চাইছেন না। আর তাতেই সব সিদ্ধান্ত ভুল হয়ে যাচ্ছে। এই সমস্যা আমাদের চারপাশে নিত্যদিনের ঘটা ঘটনার মধ্যে একটি। কিন্তু এই রাগের কারণেই ঘটতে পারে বড় কোনও বিপদ। হাজার চেষ্টা করেও নিজের রাগকে যারা বশে আনতে পারছেন না, তাদের জন্য রইল কিছু বিশেষ টিপস।

আরও পড়ুন-শ্যাম্পু ছাড়াই চুল রাখুন বশে, জেনে রাখুন এই টোটকাগুলি...

সারাদিন পরিশ্রমের পর আমরা অনেকটাই ক্লান্ত হয়ে যাই। অফিস,বাড়ি সামলাতে গিয়েই নাভিশ্বাস হচ্ছে। আর তখনই বশি স্ট্রেস লাগে। সেই সময়ে নিজেকে একটু বেশি সময় দিন। কারোর সঙ্গে কথা না বলে নির্জন একটি কোণ বেছে নিন। একটা সময় সবকিছু শূন্য লাগবে, কিন্তু খানিকক্ষণ একা থাকার পর দেখবেন মাথাটাও হালকা লাগছে, রাগও কমে গেছে আর আপনার মনটাও আগের থেকে ভাল লাগছে।

আরও পড়ুন-পুষ্টিগুণে ভরপুর জলপাই-এর রয়েছে নানান স্বাস্থ্য উপকারিতা, জেনে নিন সেগুলি...

কেউ কোনও খারাপ কথা বললে অযথা চিৎকার করে নিজের মাথা গরম করবেন না। ঠান্ডা মাথায় তার সঙ্গে কথা বলুন। কথার মধ্য দিয়েই পুরো বিষয়টিকে সমাধান করার চেষ্টা করুন।

মুড অফ থাকলে হাতের কাছে সবথেকে পছন্দের খাবার রাখুন। মাথা গরম হলেই সেই খারাপগুলো খেতে থাকবেন। দেখবেন কিছুক্ষণের মধ্যেই মাথা একদম হালকা হয়ে গেছে। এই খাবারগুলিকে মুড বাস্টার বলে। যত এই খাবারগুলি খাবেন তত মনটা ভাল লাগবে।

হট করে মাথা গরম হলে সেই জায়গা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিন। সবসময় সময়, পরিস্থিতি কোনওকিছুই ঠিক থাকে না। রাগের মাথায় অনেক ভাল কাজও খারাপ হয়ে যায়। তাই মাথা ঠান্ডা করে আবার পুণরায় সেখানে ফিরে আসুন।

মাথা যদি খুব গরম হয় তাহলে গান শুনুন মনটা অনেক হালকা লাগবে। ঘর অন্ধকার করে কানে হেডফোন দিয়ে গানটাকে উপভোগ করুন। দেখবেন মুহূর্তের মধ্যে ভ্যানিশ হয়ে যাবে আপনার রাগ।

রাগ নিজের বশে রাখতে না পারা খুবই খারাপ বিষয়। তাই যারা সাজতে ভালবাসেন রেগে গেলে মন খুলে একটু সেজে নিন। দেখবেন ম্যাজিকের মতোন রাগ পালিয়ে যাবে।

যারা গেম খেলতে ভালবাসেন, বিশেষত ছেলেরা নিজের রাগ কমাতে গেম খেলতে পারেন। এতে যেমন রাগও কমবে পাশাপাশি গেমটাও খেলা হয়ে যাবে।

হাতের কাছে সুগন্ধী রাখুন। রেগে গেলেই সুগন্ধী স্প্রে করে দিন। সুগন্ধী অ্যারোমা নার্ভকে রিল্যাক্স করে। এতে মন ভাল হয়ে যায়।