স্কেলিটন লেক বা  কঙ্কাল লেক ,যার আঞ্চলিক নাম হলো রুপকুন্ড । ভারতের উত্তরাখন্ডে হিমালয় পর্বতমালার মাঝে এটি রয়েছে। কঙ্কাল লেক, এই নামটার ভিতরই লুকিয়ে আছে আসলে এক বিশাল বড় রহস্য। সমুদ্র পৃষ্ঠ ৩০০০ মিটার উচুতে অবস্থিত এই লেকে ,এতসব মানুষের কঙ্কাল কোথা থেকেইবা এসেছে । কেনইবা তাদের কঙ্কাল এই লেকের ভেতর বহু বছর ধরে আছে তা নিয়ে রয়েছে ভিন্ন মত।    

আরও পড়ুন, পাকিস্তানের কাটাসরাজ আজও বিস্ময়, মহাদেবের চোখের জলে তৈরি পুকুর রয়েছে এই শিবমন্দিরে  

১৯৪২ সালে একজন বনরক্ষী এইচ কে মাধওয়াল এই কঙ্কাল লেকটি দেখতে পান। প্রায় অনেকগুলি কবর আবিষ্কার করেন।লেকের ভেতর যেসব কঙ্কাল রয়েছে গবেষণা করে দেখা গিয়েছে যে সেগুলো ১০০ বছরেরও বেশি পুরনো। কিন্তু তারপরও তো প্রশ্নটা থেকেই যায়। সেই সময়ে কেনইবা একসঙ্গে এত মানুষকে কবর দেওয়া হয়েছিল।

আরও পড়ুন ,পুজোয় ঠাকুর দেখার সঙ্গী যদি হয় কোনও খুদে, তবে মনে রাখুন এই বিষয়গুলি  

জানা যায় সে সময়ের কানাউজ রাজ্যের রাজা জাসদাভাল তার গর্ভবতী স্ত্রী রানী বালাম্পাসহ ভৃত্য ও নৃত্যশিল্পীদের নিয়ে নন্দ দেবী মন্দিরে  যাবার সময় তুষার ঝড়ের আটকে পড়ে এই লেকের ধারে মারা যান ।বিজ্ঞানীরা অবশ্য কঙ্কালগুলো এবং গয়নাগুলি পরীক্ষা করে জানিয়েছিলেন, এগুলো কোনো রাজকীয় বাহিনী বা একদল তীর্থযাত্রীর।