বিজ্ঞান বলে, পৃথিবীতে যা ঘটে তার প্রতিটির পিছনে একটি যুক্তি ও কারণ থাকে। কিন্তু সত্যিই কি তাই! এমন ঘটনা কি ঘটে না, যার রহস্য সমাধান করা কঠিন! এমনই এক রহস্যে ঘেরা মন্দির হল গুজরাটের নিষ্কলঙ্কেশ্বর শিব মন্দির। এই মন্দির জুড়ে এমনই এক রহস্য রয়েছে যা আজ পর্যন্ত কেউ সমাধান করতে পারেনি। 

আরও পড়ুনঃ মন্দিরে প্রসাদ হিসেবে বই-খাতা-পেন! জ্ঞান-বুদ্ধি বাড়াতে মা-বাবারা শিশুদের নিয়ে ভিড় করেন এখানে

জানা যায়, সমুদ্রতীর থেকে প্রায় ১.৫ কিলোমিটার হেঁটে গেলে তবেই এই মন্দিরের শিবলিঙ্গের দেখা পাওয়া যায়। কিন্তু এখানেও রয়েছে বিশেষ কিছু শর্ত। দিনের যে কোনও সময় গেলে দেখা মেলে না তাঁর। কারণ নির্দিষ্ট সময় ছাড়া বাকিটা তিনি থাকেন সমুদ্রের জলের তলায়। শিবলিঙ্গের দর্শন পেতে হলে দর্শনার্থীদের যেতে হয় দুপুর ১টা থেকে রাত ১০টার মধ্যে। যে সময়ে শিবলিঙ্গ জলের তলায় থাকে, তখন শুধু মন্দিরের উপরের পতাকাটুকুই দেখা যায়। 

রাত ১০ টা বাজলেই যেন সমুদ্র গহ্বরে নিদ্রা যান মহাদেব। তবে এই রহস্যের সমাধান কেউই করতে পারেননি। এই এলাকায় প্রচলিত আছে, নিজেদের সমস্ত রকমের কলঙ্ক, পাপ ধুয়ে ফেলতে পাণ্ডবরা নাকি এখানে পাঁচটি শিবলিঙ্গ গড়েন। তাই এর নাম নিষ্কলঙ্কেশ্বর মন্দির।  এই মন্দিরের উচ্চতা ২০ ফুট। রাত ১০ টা বাজলেই পুরো মন্দির জলের তলায় ডুব দেয়।