বর্ষা মানেই ওয়ার্ড্রোব থেক রঙবেরঙের পোশাক বের করে পরা। এ সময়ে আকাশের মুখ ভার থাকে। তাই নিজের মনকে চনমনে রাখতে ভরসা উজ্জ্বল রঙিন পোশাক। কিন্তু পোশাক যতই সুন্দর হোক পায়ের জুতো যদি ঠিক না থাকে তা হলে সাজটাই মাটি। 

বর্ষায় কী জুতো পরা ভালো, বা কীভাবে জুতো যত্ন করে রাখা যায় ও পা পরিষ্কার রাখা যায় এই নিয়ে বহু প্রশ্ন ওঠে। বর্ষা মানে বৃষ্টি থেকে কাদা হবেই। তাই জুতোতেও কাদা লাগবে। তাও কীভাবে পা ও জুতো পরিষ্কার রাখা যায় সেই ব্যাপারটা খেয়াল রাখতে হবে। 

আরও পড়ুনঃ বর্ষায় জমিয়ে ইলিশ খাচ্ছেন! ভালো থাকবে হার্ট, জেনে নিন ইলিশ খাওয়ার উপকারিতা

বর্ষায় চামড়ার জুতো পরলে তা নষ্ট হয়ে যাবেই। কাপড়ের জুতোও তুলে রাখুন এই সময়ে। এই সময়ে রাবার, রেক্সিন ও স্পঞ্জের তৈরি জুতো পরুন। চলা ফেরায় অসুবিধা হবে না। বর্ষায় বেশি কারুকাজ করা জুতোও পরবেন না। এছাড়াও বর্ষায় জুতো পরার বিষয়ে যে বিষয়গুলিতে নজর দেবেন- 

১) চামড়ার জুতো ছেড়ে ওয়াটার প্রুফ লেদারের জুতো পরুন। অন্যথায়ে পায়ের ত্বকে সমস্যা হবে। 

২) পায়ের মাপ অনুযায়ী জুতো কিনুন। গোড়ালি বেরিয়ে থাকলে তাতে কাদা লাগবেই। আবার গোড়ালির থেকে বড় জুতো পরলে কাদা ছিটকোবে। 

৩) পা ঢাকা জুতো পরুন। তবে বেশি টাইট বা ঢিলে যেন না হয়। এতে পায়ে কাদা লাগবে না। 

৪) এমন জুতো পরবেন না যা স্লিপ করে। বর্ষার বেশির ভাগ জুতোই কয়েক মাস পরার পরে ঘর্ষণের কারণে এমন হয়ে যায়, যা পরলে আপনি স্লিপ করে যেতে পারেন। 

৫)অফিসে একজোড়া স্লিপাপ রাখুন। বাইরে যে জুতো পরে ঘুরছেন তা সারা দিন পরে থাকবেন না। বিশেষ করে জুতো ভিজে গেলে অবশ্যই তা খুলে শুকোন। না হলে ত্বকে সমস্যা হয়। 

৬) বর্ষার জুতোয় যেন সামান্য হিল থাকে। একেবারে মাটির সঙ্গে লেগে থাকা জুতো পরবেন না। এতে পা নোংরা হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। 

৭) বর্ষায় পা পরিষ্কার রাখার জন্য অতিরিক্ত সচেতন থাকা উচিত।