ভারতকে ডিডিটাল করার লক্ষ নিয়ে  একের পকর এক পরিবর্তন করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। স্মার্ট করার তাগিদে সব কিছুই এখন স্মার্ট। আধার কার্ড থেকে রেশন কার্ড সবকিছুই এখন স্মার্ট।  রেশন, আধার প্যানের পর  ভোটার কার্ডকেও স্মার্ট কার্ডের আওতায় আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। নয়া এই ভোটার কার্ড একদম নতুন ভাবে আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তাও মাত্র ১৫ দিনের মধ্যেই হাতে মিলবে এই স্মার্ট ভোটার কার্ড।

আরও পড়ুন-রাগ থাকবে নিজের বশে, মেনে চলুন এই সহজ উপায়গুলি...

নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এবার আর সাদা কালো নয়, সম্পূর্ণ রঙিন ভাবে আসতে চলেছে এই ভোটার কার্ড। আগে ভোটার কার্ড করতে গেলে অনেক বেশি ঝামেলায় পড়তে হতো, সেই ঝক্কি থেকে সম্পূর্ণ মুক্তি পাবেন গ্রাহকরা। ডকুমেন্টস জমা দেওয়ার মাত্র ১৫ দিনের মধ্যেই পাওয়া যাবে এই কার্ড। শুধু দেখতেই নয়, নতুন অনেক ফিচার নিয়ে আসছে এই স্মার্ট ভোটার কার্ড। নিরাপত্তার ক্ষেত্রেও এই কার্ড অনেক বেশি সুরক্ষিত।

আরও পড়ুন-শ্যাম্পু ছাড়াই চুল রাখুন বশে, জেনে রাখুন এই টোটকাগুলি...

গোটা দেশের ভোটার সঙ্গতি আনতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ইতিমধ্যেই এর কাজও শুরু হয়ে গেছে। যারা সদ্যই ১৮-তে পা দিয়েছেন তারা ২৫ জানুয়ারির মধ্যে এই নয়া কার্ড পেয়ে যাবেন। পুরোনো ভোটার কার্ডের তুলনায় নতুন স্মার্ট ভোটার কার্ডে অনেক কিছু সংযুক্ত করা হয়েছে। যেমন আগে লেমিনেশন করে দেওয়া হতো এই কার্ড। কিন্তু বর্তমানে  প্লাস্টিক দিয়ে মাল্টিলেয়ার করা থাকবে এবং থাকবে নির্বাচনের হলোগ্রাম এমবস করা। এখানেই শেষ নয়, কার্ডকে সুরক্ষিত রাখতে আলাদা করে বার কোডও থাকবে বলে জানানো হয়েছে।  মাত্র ৩০ টাকার খরচ হবে এই নতুন কার্ড তৈরিতে। যাদের পুরোনো ভোটার কার্ড রয়েছে তারা চাইলে নতুন স্মার্ট ভোটার কার্ড করে নিতে পারেন। অনলাইনে আবেদনের মাধ্যমেই তা পেয়ে যাবেন।