‘নিজের সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে ও’ ভারতীয় টেনিস দলের তারকা রোহল বোপান্নাকে এভাবেই সতর্ক করে দিলেন ভারতীয় টেনিস অ্যাসোসিয়েশনের সচিব হিরণ্ময় চট্টোপাধ্যায়। ভারতের দাবি মেনে আন্তর্জাতিক টেনিস সংস্থা পাকিস্তান থেকে ডেভিস কাপের ম্যাচ সরিয়ে দিয়েছে। কিন্তু এই সিদ্ধান্ত জানানোর একদিন আগেই ভারতীয় টেনিস অ্যাসোসিয়েশন দলের নন প্লেইং ক্যাপটেন পদ থেকে মহেশ ভূপতিকে সরিয়ে দেয়। তার জায়গায় অধিনায়কত্ত্ব করার দায়িত্ব দেওয়া হয় রোহিত রাজপালকে। এই সিদ্ধান্ত জানার পরই বোপান্না টুইট করে নিজের বিরক্ত প্রকাশ করেন। বোপান্নাপ বক্তব্য ছিল কেন তাঁদের মত সিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গে একবারও কথা বলা হল না এই বিষয়ে। 

 

বোপান্নার এই টুইটের পরই ক্ষোভে ফেটে পরেন ভারতীয় টেনিস অ্যাসোসিয়েশেনের সচিব। হিরণ্ময় চট্টোপাধ্যায়ের সাফ কথা, একজন খেলোয়াড় কী ভাবে খলবে,সেটা নিয়ে আমরা কথা বলতে যাই না। তাহলে ফেডারেশেনর কাজে কেন খেলোয়াড় দখল দেবে? একই সঙ্গে যোগ করেন নিজের সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে বোপান্না। এখন প্রশ্ন এই সমস্যার কারণ কী? পাকিস্তান যেতে না চেয়ে ভারতীয় দলের নন প্লেয়িং ক্যাপটেন মহেশ ভূপতি সহ একাধিক খেলোয়াড় চিঠি দিয়েছিলেন। বলেছিলেন পাকিস্তানে খেলা হলে তাঁরা নেই। এই অবস্থায় আন্তর্জাতিক সংস্থার কাছে আবেদন করারা পাশাপাশি, দ্বিতীয় একটি দলও তৈরি করে রেখেছিল এআইটিএ।  যদিও আইটিএ ডেভিস কাপের ম্যাচ পাকিস্তান থেকে না সরাতো তহলে এই দ্বিতীয় দলকে পাঠানো হচ ইসলামাবাদে। যে দলে ছিলেন লিয়েন্ডার। 

আরও পড়ুন - তৈরি হয়নি মাঠ, ‘ঘর ছাড়া’ ওড়িশা এফসি পুণের পথে

এই যারা অসময়ে লিয়েন্ডার সহ যে সব খেলোয়াড় ভারতীয় টেনিস সংস্থার পাশে দাঁড়িয়েছিল তাদের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে চাইছেন না হিরণ্ময় চট্টোপাধ্যায়রা। তাই দুটি দল থেকেই খেলোয়াড় নিয়ে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচে মাঠে নামাতে চায় এআইটিএ। কিন্তু সেটা হলে আবার দলে চলে আসবেন লিয়েন্ডার। যেটা কিছুতেই পছন্দ নয় মহেশ-বোপান্নাদের। তাই পরিকল্পানা মাফিক মহেশকে অধিনায়ক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেই মনে করছে দেশের টেনিস মহল। আর মহেশকে সরিয়ে দেওয়া কিছুতেই মানতে চাইছে না বোপান্না। এই অবস্থায় নভেম্বরের ৯ বা ১০ তারিখ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ডেভিস কাপের ম্যাচের জন্য ভারতীয় দল ঘোষণা করবে, ভারতীয় টেনিস অ্যাসোসিয়েশন।  

আরও পড়ুন - দেশের বাইরেও খেলতে পারবে আইপিএল দলগুলি, প্রস্তাব গভর্নিং কাউন্সিলের

তবে যাঁকে নিয়ে এত বিতর্ক সেই মহেশ ভূমপতি কিন্তু এখনও নিডেকে অধিনায়ক হিসেবে মনে করছেন। ভূপতি জানিয়েছেন, তিনি এখনও অধিনায়ক। কারণ এআইটিএ তে দেওয়া চিঠিতে তিনি বলেছিলেন পাকিস্তানে ম্যাচ হলে তিনি যাবেন না। অন্য কোনও জায়গায় ম্যাচ হলে তিনি দলের সঙ্গে আছেন। আইটিএফ পাকিস্তান থেকে ম্যাচ সরিয়ে নিয়েছে। তাই ভূপতির সাফ কথা তিনি অধিনায়ক পদেই আছেন, কারণ আন্তর্জাতিক সংস্থা সিদ্ধান্ত জানানোর পর ভারতীয় টেনিস সংস্থা, তাঁকে অধিনায়ক পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার কোনও খবর দেয়নি। 

আরও পড়ুন - ডেভিস কাপের ম্যাচ ফসকালো পাকিস্তান, ভারতের দাবি মেনে সরছে ভেন্যু