বুধবার দাপটের সঙ্গেই চায়া ওপেনে খেলা শুরু করেছিলেন ভারতীয় শাটলার পিভি সিন্ধু। স্ট্রেট গেমে জিতেছিলেন প্রথম রাউন্ডের ম্যাচ। কিন্তু বিশ্বচ্যাম্পিয়ন সিন্ধু দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচেই হারের মুখ দেখলেন, সেটাও আবার এগিয়ে থেকে। থাইল্যান্ড চোচুংরে বিরুদ্ধে সিন্ধু প্রথম গেম জিতেছিলেন ১২-১২। এই ফল দেখে অনেকরই মনে হয়েছিল আবারও একটা দাপুটে জয় অপেক্ষা করছে গত মাসেই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়া ভারতীয় শাটলারের জন্য। কিন্তু খেলার দুরন্ত প্রত্যাবর্তন করলেন থাই খেলোয়াড়। ২১-১৩ ও ২১-১৯ এ পরপর দুটি গেম জিতে সিন্ধুকে চাইনা ওপেন থেকে বাইরের রাস্তা দেখিয়ে দিলেন চোচুং। ৫৮ মিনিটের লড়াই শেষে হার মানতে হয় বিশ্বচ্যাম্পিয়নকে।

আরও পড়ুন - বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে ছিটকে গেলেন হিমা দাস

চাইনা ওপেন থেকে সিন্ধু ছিটকে গেলেও তাঁকে নিয়ে অলিম্পিক পদকের স্বপ্নই দেখছেন ভারতীয় ব্যাডমিন্টন দলের কোচ পুলেল্লা গোপীচাঁদ। এক ইন্টারভিউতে গোপী জানিয়েছেন, ২০২০ টোকিও অলিম্পিকে যাদের দিকে তাকিয়ে পদকের স্বপ্ন দেখছে ভারত, তাদের মধ্যে একজন পিভি সিন্ধু। সিন্ধু সোনার পদকের দৌড়েই আছে। সিন্ধু সোনার পদকের জন্যই ঝাঁপাবেন, কিন্তু পথটা মোটেই সহজ হবে না। সিন্ধুর কোচের মতে কঠিন পরিশ্রম করতে হবে হায়দরাবাদী শাটলারকে। সঙ্গে জোর দিতে হবে ফিটনেসে। এখন সিন্ধু বিশ্বচ্যাম্পিয়ন, তাই প্রতিপক্ষও তৈরি হয়ে নামবে তাঁর বিরুদ্ধে। কারোলিনা মারিন, তাই জু বা এন্টাননের মত খেলোয়াড়রা চ্যালেঞ্জ জানাবে সিন্ধুকে। মনে করছেন গোপী স্যার। তাই যারা মনে করছে অলিম্পিকে সিন্ধুকে কঠিন লড়াইয়ের মুখে পরতে হবে না, তাদের জন্য ভারতীয় দলের কোচ বলছেন, কঠিন লড়াই অপেক্ষা করছে তাঁর ছাত্রীর জন্য। 

আরও পড়ুন - জীবিকা বাঁচানোর লড়াই করছেন বাগানের প্রাক্তন ফুটবলার, মায়া নগরীতে উদয় কোনারের অসম লড়াই

সিন্ধুর পাশাপাশি সাই প্রনিথের খেলাও আশা জাগাচ্ছে গোপী স্যারের চোখে। সাইনা, সিন্ধুর মত প্রনিথও হায়দরাবাদে গোপীচাঁদ অ্যাকাডেমি থেকে উঠে এসেছেন। গোপী বলছেন, কেরিয়ারের শুরুর দিকেই বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জ পদক পাওয়াটা আগামী দিনে সাইকে অনেক আত্মবিশ্বাস দেবে। বর্তমানে ভারতীয় শাটলারদের পারফরম্যান্স দেখে অনেকেই বলছেন ভারতই আগামীদিনে ব্যাডমিন্টনের চায়না হয়ে উঠবে। যদিও এই কথা মানতে চান না গোপী। তাঁর মতে যতদিন না ভারত টিম ইভেন্টে জয় পাচ্ছে এবং ভাল বেঞ্চ স্ট্রেন্থ তৈরি হচ্ছে ততদিন ভারত চায়নার সমকক্ষ হয়ে উঠতে পারবে না। 
আরও পড়ুন - ব্র্যান্ড ভ্যালু কমল শাহরুখের কেকেআর ও বিরাটের আরসিবির, শীর্ষে মুম্বাই, দ্বিতীয় চেন্নাই