পুলিশের বয়ান অনুযায়ী দীপক চাওলা প্রায় এক সপ্তাহ আগেই বিমানবন্দর থেকে দুটি সুটকেস তুলে নিয়েছিলেন। এমনটাই তাদের সিসিক্যামে ধরা পড়েছিল। তারপর তিনি ব্যাগ দুটি তাঁর গাড়িতে ভরে ফের বন্দরে ছুকে ্ন্য জায়গার বিমান ধরেছিলেন। সেখান থেকে মেমফিসে ফেরার পরই তাঁকে গ্রেফতার করে বিমানবন্দর পুলিশ।

নাম তাঁর দীনেশ চাওলা। ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন হোটেল ব্যবসায়ী। অতীতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অংশীদার হিসেবে চারটি হোটেলও চালিয়েছেন। আর তিনিই বিমানবন্দরে মাল চুরি করার অভিযোগে গ্রেফতার হলেন।

পুলিশের বয়ান অনুযায়ী দীপক চাওলা প্রায় এক সপ্তাহ আগেই বিমানবন্দর থেকে দুটি সুটকেস তুলে নিয়েছিলেন। এমনটাই তাদের সিসিক্যামে ধরা পড়েছিল। তারপর তিনি ব্যাগ দুটি তাঁর গাড়িতে ভরে ফের বন্দরে ছুকে ্ন্য জায়গার বিমান ধরেছিলেন। সেখান থেকে মেমফিসে ফেরার পরই তাঁকে গ্রেফতার করে বিমানবন্দর পুলিশ।

আরো পড়ুন - ভারত-পাকিস্তানের যাবতীয় ইস্যুই দ্বিপাক্ষিক প্রকৃতির, ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকে জানালেন মোদী

আকো পডুন - জি৭ সম্মেলনে মোদী, কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকের সম্ভাবনা

আরো পড়ুন - জি-৭ সম্মেলনে নরেন্দ্র মোদী, উঠে আসতে পারে কাশ্মীর প্রসঙ্গ

আরো পড়ুন - ভারত-পাকিস্তান চাইলেই মধ্যস্থতা, ফের কাশ্মীর প্রসঙ্গে মুখ খুললেন ট্রাম্প

জেরার মুখে চাওলা হোটেলস চেইনের সিইও বিমানবন্দর থেকে দুটি মালপত্র সুটকেস চুরি করার কথা স্বীকারও করে নেন। মেমফিস বিমান বন্দরের পুলিশ জানিয়েছে, সব মিলিয়ে সেগুলিতে ৪০০০ মার্কিন ডলারের জিনিসপত্র ছিল।

তবে এই প্রথম নয়, দীপক চাওলার দাবি, দীর্ঘদিন ধরেই তিনি এইভাবে বিমানবন্দর থেকে মালপত্র চুরি করে আসছেন। তবে আগের আর কী কী চুরি করেছেন তার বিষদ বিবরণ দেননি। জানিয়েছেন, তিনি জানেন মালপত্র চুরি করা উচিত নয়। কিন্তু তাঁর কাছে চুরির উত্তেজনা, একটা নেশার মতো।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অন্যতম বড় হোটেল চেইন চালান দীপক ও তাঁর ভাই সুরেশ চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে অংশিদারিত্বে তাঁরা চারটি হোটেল চালাতেন। ১৯৮৮ থেকে চট্রাপ্ম পরিবারের সঙ্গে তাঁদের ওঠাবসা। ফেব্রুয়ারিতে ট্রাম্প জানান, ডেমোক্র্য়াটরা সমস্যা করছেন বলেই তিনি চাওলা ব্রাদার্সদের ব্যবসা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিচ্ছেন। তবে চাওলা ভাইদের কিন্তু প্রশংসাই করেছিলেন।