ফের বিজ্ঞানে গৈরিকরণের হাওয়া। এবারও রাম রামায়ণের সঙ্গে তুলনা করা হল আধুনিক বিজ্ঞান কারিগরি ব্য়বস্থার। যা ঘিরে বিতর্কে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পখরিয়াল নিশাঙ্ক। 

ভারতীয় বিজ্ঞান কারিগরি ব্য়বস্থার অন্য়তম নিদর্শন রাম সেতু। সেই সেতুই প্রমাণ করে বিশ্বের তাবড় ইঞ্জিনিয়াররা ভারতের ইঞ্জিনিয়ারদের কাছে কিছুই নয়। মঙ্গলবার খড়গপুর আইআইটি ৬৫ তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে এমনই মন্তব্য় করেন কেন্দ্রীয মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী । পখরিওয়াল বলেন, 'অতীতে যারা বিজ্ঞান প্রয়ুক্তির দিক থেকে ভারতকে তাচ্ছিল্য়ের চোখে দেখত, আজ তারাই স্বীকার করছে ভারতের চিন্তাভাবনা বিজ্ঞানভিত্তিক ছিল। আমাদের দেশ ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সর্বোচ্চ স্থান। যদি রাম সেতুর কথা বলি- এটা কোনও আমেরিকা, ব্রিটেন বা জার্মানির ইঞ্জিনিয়াররা বানায়নি। এটা আমাদের ইঞ্জিনিয়াররা বানিয়েছিল। যা দেখে সারা পৃথিবী আশ্চর্যান্বিত হয়ে গেছে। এসব দেখেই আমার মনে হয় প্রযুক্তি ক্ষেত্রে আমরা অনেক বেশি উন্নত ছিলাম।'

আরও পড়ুন :মোদীর নামের কোন অক্ষর বোঝায় শান্তি, বিভক্ত সোশ্যাল মিডিয়া! আলোচনার কেন্দ্রে কুনাল কামরা

​​​​​আরওপড়ুন : ​​কর্ণাটকের প্রথমবার তিন-তিনজন উপমুখ্যমন্ত্রী! বিজেপিকে তাড়া করছে পর্ণোগ্রাফি বিতর্ক
এই বলেই অবশ্য থেমে যাননি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তিনি বলেন, 'উন্নয়নের দিক থেকে আমরা চিনের থেকেও এগিয়ে গেছি। পৃথিবীতে আমরা এখন নাম্বার ওয়ান। আমরা গীতা এবং বিজ্ঞানের একসঙ্গে চর্চা করি। কেবল এই দেশেই নয়, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশেই গীতা পড়ানো হচ্ছে , গীতা একটা বিজ্ঞান। আত্মার সঙ্গে পরমাত্মাকে মেলানোর এমন একটা বিজ্ঞান যা নিয়ে মানুষ ভাবতে শুরু করেছে।'  

তবে মন্ত্রী যাই বলুন না কেন,তাঁর এই বক্তব্য় নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। আইআইটির মতো জায়গায় রামসেতুর উদাহরণ টেনে ভারতকে গৌরবান্বিত করা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। তবে শুধু পখরিয়াল নন, অতীতে রামভক্তির উদাহরণ দিতে গিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছেন মোদী ব্রিগেডের অনেক মন্ত্রী। এই বিষয়ে  অবশ্য সবার ওপরে নাম রয়েছে ত্রিপুরার মুখ্য়মন্ত্রী বিপ্লব দেবের। বামেদের হটিয়ে মুখ্য়মন্ত্রী গদিতে বসার পর থেকেই তাঁর একের পর মন্তব্য় ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক। শেষে মোদি নাম না করে সতর্ক হতে বলায় মন্তব্য়ে কিছুটা রাশ টানেন দেব। 

আরও পড়ুন :ভগবান শ্রীকৃষ্ণের কায়দায় বাঁশি বাজালেই গরু বেশি দুধ দেয়, দাবি বিজেপি বিধায়কের

আরও পড়ুন : অরুণ জেটলির শেষকৃত্যে পকেটমারদের দাপট, বাবুল-সহ দুই মন্ত্রীর মোবাইল চুরি

দিল্লির রাজনীতির কারবারীরা অবশ্য় এতে দোষের কিছু দেখছেন না। তাঁদের মতে,আরএসএস-এর ঘরানা থেকেই বিজেপির বেশিরভাগ নেতা আসেন। তাই তাঁদের চিন্তাধারা যে রাম-রামায়ণের বাইরে যাবে না এটাই স্বাভাবিক।