হুগলির মাহেশে এবছর করোনা পরিস্থিতির কারণে রথযাত্রা হবে না।  দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম রথযাত্রা চলতি বছরে স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্দির ট্রাস্ট কমিটি। শনিবার হুগলির জেলাশাসক, শ্রীরামপুর পুরসভার চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে ওই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন, সোমবার থেকেই খুলছে কলকাতার ৪৫ পুর বাজার, জানুন কী কী বিষয়ে কড়াকড়ি

মন্দির ট্রাস্ট কমিটি সূত্রে খবর,  ৬২৪ বছরের ইতিহাসে এই প্রথমবার হুগলির মাহেশের ঐতিহ্যবাহী রথ এবছর আর গড়াবে না।  এবার আর রথে তোলা হবে না জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রাকে।  তার বদলে পুজোর আচার হিসেবে নারায়ণ শিলাকে মাসির বাড়ি নিয়ে যাওয়া হবে।  রথের সময় মন্দিরের পিছনে অস্থায়ী মাসির বাড়ি গড়ে সেখানে নিয়ে যাওয়া হবে জগন্নাথ, বলরাম, সুভদ্রাকে।  আগামী ৫ জুন স্নান যাত্রা হবে মন্দিরের বারান্দায়।   করোনা সংক্রমণ যাতে না ছড়ায় তার জন্য সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলছেন চিকিৎসক মহল থেকে প্রশাসন। তাই ২৩ জুন রথযাত্রা উপলক্ষে জমায়েত এড়াতেই এই ব্যবস্থা।

আরও পড়ুন, সোমবার খুলছে না দক্ষিণেশ্বর- বেলুড় মঠ ও তারকেশ্বর, জানুন কবে খুলবে বলল মন্দির কর্তৃপক্ষ


মাহেশের ট্রাস্টি বোর্ডের প্রধান সৌমেন অধিকারি জানিয়েছেন, এবার করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এত মানুষের জমায়েত হলে বড়সড় সমস্য়া তৈরি হবে। তিনি আরও জানিয়েছেন, প্রশাসনের নির্দেশেই সবকিছু চলছে । তাই প্রশাসনের অনুরোধেই এবার মাহেশের রথযাত্রা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেওয়া হল বলেই জানিয়ে দিয়েছে ট্রাস্টি বোর্ড। তবে রথযাত্রা স্থগিত হলেও রীতিনীতি মেনে পুজা ও অন্যান্য ধর্মীয় অনুষ্ঠান যথারীতি চলবে।  মন্দিরেই তৈরি হবে মাসির বাড়ি। সেখানেই রথের কটা দিন থাকবেন প্রভু জগন্নাথ, বলরাম এবং সুভদ্রা।

 

 

করোনা আক্রান্ত রাজ্য়ের তৃণমূল বিধায়ক, কালীঘাটের ফ্ল্য়াট সিল করে বসল পুলিশি প্রহরা

করোনা আক্রান্ত বেলেঘাটা থানার আধিকারিক সহ পরিবারের ৬ সদস্য, আইডিতে এখন চিকিৎসধীন

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসিস্ট্যান্ট

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের