খাগড়াগড়কাণ্ডে ১৯ জনের সাজা ঘোষণা হল শুক্রবার। সাজায় ৬জনকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বাকিদের সর্বোচ্চ ৮ বছরের জেল ও ২০ হাজার টাকা করে 
জরিমানা করেছে আদালত। তবে পুলিশ হেফাজতে কাটানো দিন বাদ দেওয়া হবে সাজা থেকে।

আরও পড়ুন :নারদকাণ্ডে ফের চাপে টিএমসি, লোকসভার স্পিকারের কাছে মামলার অনুমতি চাইল সিবিআই

আরও পড়ুন :আক্রান্ত দিলীপ ঘোষ, কাউন্সিলরের উপস্থিতিতেই হামলা চালাল ২৫০ তৃণমূল-কর্মী

এদিন ১৯ জনের মধ্যে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে শেখ রহমতুল্লা,সইদুল ইসলাম,মহম্মদ রুবেল,সাদিক ওরপে সুমন,জাহিদুর ইসলাম ও তারিকুর ইসলামকে। বাকি ৮ বছরের কারাবাসের সাজা শোনানো হয়েছে,মুরুল হক মণ্ডল, গিয়াসুদ্দিন মুন্সি,ওয়াবাব মেনন, হাবিবুর রহমান, মফিজুল আলি, শাহনুর আলম,আমজাদ আলি শেখকে। এছাড়াও দুই মহিলা গুলসানা বিবি, আলিমা বিবি ও সাইফুল ইসলাম খানকে খাগড়াগড়কাণ্ডে ৬ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন বিচারক। সাজা ঘোষণার পর সাজাপ্রাপ্তদের আইনজীবী ফজলে আহমেদ খান বলেন,এই সাজার পর হাইকোর্টে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে সাজাপ্রাপ্তদের। তবে তারা উচ্চতর আদালতে যাবে কিনা এটা তাদের সিদ্ধান্ত। অন্যদিকে এনআইএ-র আইনজীবী শ্য়ামল ঘোষ বলেন, আমরা সর্বোচ্চ সাজা চেয়েছিলাম। তবে আদালত যা রায় দিয়েছে তা মাথা পেতে নিতে হবে।

আরও পড়ুন : তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে কেন, বিধায়কের ওপর হামলার অভিযোগ

আরও পড়ুন :'পলিটিক্য়াল টুরিজম' করছেন, দেবশ্রী নিয়ে আপত্তিতে অনড় শোভন
২০১৪ সলের ২ অক্টোবর অষ্টমীর দিন বর্ধমানের খাগড়াগড়ে একটি বাডি়তে বিস্ফোরণ ঘটে। ঘটনাস্থলেই মারা যায় এক ব্য়ক্তি। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় করিম শেখ নামের আরও এক ব্য়ক্তি মারা যান। সেদিন বিস্ফোরমের তীব্রতায় কেঁপে উঠেচিল গোটা এলাকা। প্রথমে সিআইডি পরে এই কাণ্ডের তদন্তভার নেয় এনআইএ। তদন্তে নেমে ঘটনার পিছনে জামাতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ বা জেএমবি জঙ্গিদের যোগ পাওয়া যায়।