পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর নামে 'প্রতারণা'। মেয়েকে বাংলার সিনেমার নায়িকা করতে গিয়ে ৫৫  হাজার টাকা খোয়ালেন এক গৃহবধূ। আদালত চত্বর থেকে টাকা নিয়ে চম্পট দিল প্রতারক! ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হুগলির চুঁচুড়ায়। তদন্তে নেমেছে চন্দননগর পুলিশ কমিশনারেটের সাইবার সেল।

আরও পড়ুন: ভালো কাজের প্রলোভনে নিষিদ্ধপল্লিতে পাচার, কাশ্মীর থেকে ফিরলেন হাড়োয়ার বধূ

উত্তর ২৪ পরগণার মধ্যমগ্রামের দোলতলায় থাকেন অর্পিতা দাস। দিন কয়েক আগে পরিচালক রাজ চক্রবর্তীর নামে ওই গৃহবধূর সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতায় এক ব্যক্তি। চ্যাটে নিয়মিত কথাও হত দু'জনের। এরপর অর্পিতাকে ওই ব্যক্তি প্রস্তাব দেয়,  মেয়েকে সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ করে দেবে সে। কিন্তু তারজন্য় ৫৫ হাজার টাকা লাগবে। মেয়ে সিনেমায় অভিনয় করবে! বড়পর্দায় তাকে দেখবেন! আর কী চাই! সাগ্রহে প্রস্তাবে রাজি হয়ে যান ওই গৃহবধূ।  টাকাটা কীভাবে দিতে হবে? 'প্রতারক' জানায়, হুগলির চুঁচুড়া পুলিশ লাইনে গিয়ে এক পুলিশ অফিসারের হাতে টাকা দিয়ে আসতে হবে। 

আরও পড়ুন: আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস, দোলে চিনা সামগ্রী বয়কটের সিদ্ধান্ত ব্যবসায়ীদের

বৃহস্পতিবার দুপুরে চুঁচুড়া পুলিশ লাইনে পৌঁছে যান অর্পিতা। পুলিশ লাইনের উল্টো দিকে আদালতে বারান্দায় সুমন নামে এক যুবকের হাতে ৫৫ হাজার টাকা তুলে দেন তিনি। এরপর কথাবার্তার ফাঁকে একটু অন্যমনষ্ক হয়ে যান ওই গৃহবধূ। আর সেই ফাঁকেই সুমন টাকা নিয়ে চম্পট দেয় বলে অভিযোগ। তারপর থেকে অনেকবার ‘ভুয়ো’ রাজ চক্রবর্তী ও সুমনকে অনেকবার ফোন করলেও অপর প্রান্ত থেকে প্রত্যেকবারই বলা হয় ‘সুইচড অফ’।  শেষপর্যন্ত চুঁচুড়া থানায় প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেন অর্পিতা দাস। রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে পুলিশমহলে।