দেশের করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় এখন প্রয়োজন প্রচুর অর্থের। এই অবস্থায় মহারাষ্ট্র, তেলেঙ্গানা সহ কয়েকটি রাজ্য সরকার নিজেদের কর্মীদের বেতন কমানোর পথে হেঁটেছে। এবার করোনাভাইরাসের জন্য তৈরি হওয়া পরিস্থিতির মোকাবিলায় সেই পথেই এগোলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এক বছরের জন্য নিজের মন্ত্রিসভার সকল সদস্যের বেতন হ্রাসের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

আমেরিকায় রক্ষে পাচ্ছেন না বসবাসরত ভারতীয়রাও, দেশটিতে মৃত্যু মিছিল ৬০ হাজার ছাড়ানোর আশঙ্কা

করোনাকে মারতে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্টের মুখে রামায়ণ, হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনকে বললেন সঞ্জীবনী

লকডাউনে বাড়িতে বসেই বাড়িয়ে ফেলুন প্রতিরোধ ক্ষমতা, করোনা যুদ্ধে নামার টিপস দিল খোদ সরকার

এক বছরের জন্য কমিয়ে দেওয়া হবে উত্তরপ্রদেশের সমস্ত মন্ত্রি ও বিধায়কদের বেতন। এই নিয়ে বুধবারই রাজ্যের ক্যাবিনেটে বিলটি পাস হয়েছে। মোট বেতনের ৩০ শতাংশ কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সেই টাকা মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের প্রতিষ্ঠা করা কোভিড কেয়ার ফান্ডে জমা পড়বে। সারা রাজ্যে করোনা আক্রান্তদের সেবার এই টাকা খরচা করা হবে বলে জানিয়েছেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী সুরেশ খান্না। 

বর্তমানে উত্তরপ্রদেশে বিধায়কের সংখ্যা ৫০৩। যার মধ্যে মন্ত্রি রয়েছেন ৫৬ জন। তাঁদের সকলের বেতনের ৩০ শতাংশ কেটে নেওয়ার ফলে কোভিড ফান্ডে জমা পড়বে ১৭.৫০ কোটি টাকা। 

 

 

এদিকে উত্তরপ্রদেশে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এই অবস্থায় জরুরী প্রয়োজনে বাড়ির বাইরে যাওয়া মানুষজনের জন্য মাস্ক পরা আবশ্যক করল প্রশাসন। কোনও ব্যক্তি এই নিয়ম লঙ্ঘন করলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করা হবে বলে জানিয়েছেন  উত্তরপ্রদেশের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব অবনিশ অবস্থি।

অতিরিক্ত মুখ্য সচিব অবনিশ অবস্থি বলেন, " প্রতিটি ব্যক্তির মাস্ক পরা আবশ্যক করা হয়েছে। কেউ যদি এই নিয়ম না মেনে চলেন তবে তাঁর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করা হবে।"