চলতি মাসের ১২ তারিখ সকালে নিজের টুইটারে একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ২০১৬ সালে টি২০ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে খেলা একটি ম্যাচের ছবি দিয়ে বিরাট ধোনি কুর্নিশ জানিয়েছিলেন। এই টুইট দেখে সবাই ধরে নেন সেদিনই ক্রিকেট থেকে অবসর নিচ্ছেন ধোনি। বিকেলের মধ্যে খবর হয়ে যায় মাহি সাংবাদিক সম্মেলন ডেকেছেন। এই সব দেখে ভারতীয় দলের নির্বাচক প্রধানকে বলতে হয় ধোনি অবসর নিচ্ছেন না। এমন কোনও খবর তাঁদের কাছে নেই। রাতেই ধোনির স্ত্রী টুইটে এমএসের অবসর জল্পনা উড়িয়ে দেন। ১৪ তারিখ সংবাদ মাধ্যমের সামনে এলেন বিরাট। ভারত দক্ষিণ আফ্রিকা টি২০ সিরিজের সাংবাদিক বৈঠক করতে। আর সেখানে উঠল ধোনিকে নিয়ে টুইট প্রসঙ্গ।

আরও পড়ুন - নতুন রেকর্ডের সামনে রোহিত, চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছেন বিরাট

বিরাট সত্যিই সেদিনের ঘটনায় অবকা হয়েছেন। ভারত অধিনায়ক বলছেন, ‘আমি নিজের বাড়িতে ছিলাম। ওই ম্যাচটা আমার কাছে খুব স্মরণীয়। তাই সেই ম্যাচের ছবি টুইট করি। কিন্তু সেটা থেকে যা খবর ছড়িয়ে গেল সেটা দেখে আমি অবাক। আমার মনে কিছুই ছিল না। এই ঘটনা আমাকে শিক্ষা দিয়ে গেল।’ বিরাটের মতে তিনি যেভাবে সবকিছু দেখেন সটা সবাই নাও দেখতে পারে। তবে ধোনির অবসর প্রসঙ্গে এদিন বিরাট বলেন, ‘বয়েস একটা সংখ্যা। ধোনি সেটা প্রমাণ করেছে। দলে অভিজ্ঞতার প্রয়োজন সব সময় আছে। ধোনি সব সময় ভারতীয় ক্রিকেটের কথা ভাবে। কবে খেলা ছড়াবে সেটা ওর সিদ্ধান্ত, অন্য কারও মতামতের প্রয়োজন নেই।’

আরও পড়ুন - ফোকাসে টি২০ বিশ্বকাপ, রবিরার থেকেই দল তৈরিতে নামছেন বিরাট-শাস্ত্রী

রবিবার থেকে শুরু হচ্ছে ভারত দক্ষিণ আফ্রিকা টি২০ সিরিজ। বিরাট জানিয়েছেন গত কয়েক বছরে ঘরোয়া ক্রিকেটে যে ক্রিকেটাররা ভাল পারফর্ম করছেন এবার তাদের সুযোগ দেওয়ার পালা, এবং একই সঙ্গে আগামী দিনের জন্য দলের সঠিক কম্বিনেশন গড়ে তোলা। মাথায় অবশ্যই থাকছে আগামী বছরের টি২০ বিশ্বকাপ। তবে বিরাট শাস্ত্রীরা চাইছেন আগামী দিনের জন্য দল এমন ভাবে তৈরি করতে যাতে সব পরিস্থিতির জন্যই দল তৈরি থাকতে পারে। 
আরও পড়ুন - পাঁচ ভারতীয় ক্রিকেটারকে বিস্তারিত তথ্য জমার নির্দেশ নাডার, তালিকায় জাদেজা, পূজারা ও রাহুল