বিধান নগর উত্তর থানার পর এবার বিধান নগর দক্ষিণ থানায় করোনার থাবা। ৫ জন পুলিশ কর্মী করোনায় আক্রান্ত। সম্প্রতি করোনা পরীক্ষা করা হলে তাঁদের প্রত্য়েকেরই রিপোর্ট পজিটিভ আসে।  অপরদিকে,করোনা আক্রান্ত টালা থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত দুই পুলিশ অফিসার। 

আরও পড়ুন, করোনা আতঙ্কে এগিয়ে এল না কেউ, ৬ ঘণ্টা ধরে পড়ে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু বৃদ্ধার


বিধান নগর দক্ষিণ থানায় কিছুদিন ধরে বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মী তারা অসুস্থ ছিল। করোনা উপসর্গ দেখা দেওয়ায় তাদের পরীক্ষা করানো হয়েছিল। রবিবার, তাদের রিপোর্ট আসলে জানা যায় তাদের মধ্যে পাঁচজন পুলিশকর্মী করোনায় আক্রান্ত। তবে এর আগে করোনা থাবা বহুবার বিধান নগর থানার উপর গিয়ে পড়েছে। অপরদিকে,করোনা আক্রান্ত টালা থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত দুই পুলিশ অফিসার। তাই টালা থানার দায়িত্ব চিৎপুর থানার এক আধিকারিককে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল কলকাতা পুলিশের সদর দপ্তর। লালবাজারের নির্দেশ মেনে আপাতত টালা থানার দায়িত্ব সামলাবেন চিৎপুরের অতিরিক্ত ওসি। 

আরও পড়ুন, সাতসকালেই দুর্ঘটনা, যশোর রোডে উল্টে গেল যাত্রী ভর্তি বাস

প্রসঙ্গত শহরে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া। আগের সপ্তাহের শুক্রবার এং শনিবার করোনায় কলকাতা পুলিশের দুই জনের মৃত্যু হয়। একজন ছিলেন  কলকাতা ট্রাফিক পুলিশের ইকুইপমেন্ট সেলের অফিসার ইন-চার্জ অভিজ্ঞান মুখোপাধ্যায়। অপরজন হেস্টিংস থানার পুলিশকর্মী কৃষ্ণকান্ত বর্মন।  কলকাতা পুলিশের তরফে জানানো হয়,  একেবারে সামনের সারিতে থেকে তাঁরা লড়ছিলেন করোনা-যুদ্ধে। প্রয়াত সহযোদ্ধার পরিবারের হাতে রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য বিমা অনুযায়ী দশ লক্ষ টাকা তুলে দেওয়া হবে শীঘ্রই । প্রয়াত সহকর্মীর শোকসন্তপ্ত পরিবারের পাশে থাকার    প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কলকাতা পুলিশ। তবে করোনা যোদ্ধাদের নিয়ে চিন্তা বাড়ছে প্রশাসনের। ফলে এই অফিসারের মৃত্যু আতঙ্কও বাড়িয়ে তুলেছেন সহকর্মীদের মধ্যে।
 

 

করোনায় ফের ১ এসবিআই কর্মীর মৃত্য়ু, মৃতের পরিবারকে চাকরি দেওযার দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্মীরা

   পূর্ব ভারতের প্রথম সরকারি প্লাজমা ব্যাঙ্ক-কলকাতা মেডিকেল, করোনা রুখতে প্রস্তুতি তুঙ্গে

  মৃত্যুর পর ২ দিন বাড়ির ফ্রিজে করোনা দেহ, অভিযোগ 'সাহায্য মেলেনি স্বাস্থ্য দফতর-পুরসভার'

  অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বিকলের পরও কোভিড জয়ী ৫৪-র দুধ ব্যবসায়ী, শহরকে দিলেন এক সমুদ্র আত্মবিশ্বাস

কোভিড রোগী ফেরালেই লাইসেন্স বাতিল, হাসপাতালগুলিকে হুঁশিয়ারি রাজ্য়ের